পয়লা এপ্রিল থেকে লেনদেনে জুড়তে চলেছে একাধিক নতুন নিয়ম, না জানলে পড়তে পারেন বড় সমস্যায়

২০২০-২১ আর্থিক বছরের শেষ দিন ৩১ মার্চ।  এর  মধ্যে আপনাকে করে ফেলতে হবে অর্থ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ ন’টি কাজ। নইলে বড় অঙ্কের জরিমানা দিতে হতে পারে। ২০২১-২২ আর্থিক বছরে প্রথম দিন থেকেই আয়করের ক্ষেত্রে একাধিক নতুন নিয়ম কার্যকর হচ্ছে৷

 

দ্বিগুণ কর এড়াতে ফাইলিং ডিক্লারেশন–

কেন্দ্রীয় প্রত্যক্ষ কর বোর্ড (সিবিডিটি) করোনা আবহে  ভারতে আটকে পড়া বিদেশি নাগরিক এবং প্রবাসীদের এই তথ্য জানাতে বলেছে  ৩১ মার্চ, ২০২১ এর মধ্যে৷  নইলে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে আয়ের ওপর দ্বিগুণ কর দিতে হবে৷

আধারের সঙ্গে প্যান সংযুক্তি–

এখনও পর্যন্ত প্যান নম্বরের সঙ্গে আধার নম্বর সংযুক্ত না করা হলে করিয়ে নিতে হবে। কারণ আয়কর জমা দেওয়ার সময় প্যানের সঙ্গে আধার কার্ড  লিঙ্ক করা প্রয়োজন। আধার-প্যান লিঙ্কের মেয়াদ ৩০ জুন, ২০২০ থাকলেও  পরে সেই মেয়াদ  বাড়িয়ে ৩১ মার্চ, ২০২১ করা হয়৷ এর মধ্যে না করলে  তাঁদের প্যান কার্ড ১ এপ্রিল থেকে নিষ্ক্রিয় হয়ে যেতে পারে।

এলটিসি নগদ ভাউচার–

এলটিসি ক্যাশ ভাউচার স্কিমের আওতায় কর ছাড়ের সুবিধা পেতে, জিএসটি নম্বর সম্বলিত বিলগুলি জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ মার্চ, ২০২১। কোনও কর্মচারী ১২ শতাংশ বা তার বেশি জিএসটি-যুক্ত পণ্য কিনলে সে টাকাও ফেরত পাবেন।

অগ্রিম ট্যাক্স ফাইল–

নিয়ম অনুযায়ী কোন  ব্যক্তির করের পরিমাণ ১০ হাজার টাকার বেশি হলে একেবারে না নিয়ে  চারটি কিস্তিতে অ্যাডভান্স ট্যাক্স জমা দিতে হয়৷  ১৫ জুলাই, ১৫ সেপ্টেম্বর, ১৫ ডিসেম্বর এবং ১৫ মার্চ অ্যাডভান্স ট্যাক্স জমা দিতে হয়। তাই  আগামী ১৫ মার্চের মধ্যেই চতুর্থ কিস্তির অ্যাডভান্স ট্যাক্স জমা করতে হবে।

সংশোধিত রিটার্ন–

সংশোধিত রিটার্ন জঅমা দিতে হয়  মূল ট্যাক্স রিটার্নে কোনো ভুল-ত্রুটি থাকলে।  আপনি যদি নিজের আইটিআর ফাইল করে থাকেন আর সেখানে কোনো পরিবর্তন করতে চান তাহলে সংশোধিত রিটার্ন ফাইল করতে পারবেন৷

বিরোধ সে বিশ্বাস–

‘বিরোধ সে বিশ্বাস’ প্রকল্পের আওতায় বিবৃতি দায়ের করার শেষ সময়  ৩১ মার্চ। প্রত্যক্ষ কর ‘বিরোধ সে বিশ্বাস’ আইন কার্যকর হয় ২০২০ এর ১৭ মার্চ। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য মুলতুবি বিবাদ এর নিষ্পত্তি করা৷ সমস্ত আদালত মিলিয়ে ৯.৩২ লক্ষ কোটি টাকার প্রত্যক্ষ কর সম্পর্কিত ৪.৮৩ লক্ষ মামলা বিচারাধীন। করদাতারা বিতর্কিত কর পরিশোধ করবেন৷ সুদ এবং জরিমানার উপর পুরো ছাড় পাবেন।

বিশেষ উৎসব অগ্রিম প্রকল্প–

বিশেষ উৎসব অগ্রিম প্রকল্পের অধীনে সরকারী কর্মচারীরা ১০ হাজার টাকার সুদমুক্ত অগ্রিম নিতে পারবেন৷ সর্বোচ্চ ১০টি কিস্তিতে ফেরত দেওয়া যাবে।

পিএমএওয়াইয়ের আওতায় ঋণ–

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা (পিএমএওয়াই)-র আওতায় ঋণ সুবিধা নেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ মার্চ, ২০২১। গৃহঋণের সুদের হার কম থাকায় প্রকল্পটি ঋণগ্রহীতাদের মাসিক কিস্তির বোঝা আরও কমিয়ে আনতে সাহায্য করে।

১ এপ্রিল থেকে আয়করে জুড়ছে পাঁচটি নতুন নিয়ম–

৭৫ বছর বা তার বেশি বয়সের প্রবীণ নাগরিকদের পেনশন থেকে আয় এবং একই ব্যাঙ্কের স্থায়ী আমানতের সুদ-সহ আইটিআর রিটার্ন দাখিলে ছাড় রয়েছে।

বড়সড় ধাক্কা বিজেপি শিবিরে, সাত দিনের মধ্যেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরতে চলেছে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

টিডিএস অথবা ইপিএফ অ্যাকাউন্টে বার্ষিক আড়াই লক্ষ টাকার বেশি জমা রাখলে  আইটিআর দাখিল করতে হবে৷ ২০২১ এর ১ এপ্রিল থেকে আপনি পিএফে আড়াই লক্ষ টাকার বেশি জমা রাখলে যে সুদের পরিমাণ হবে তার উপর আপনাকে কর দিতে হবে।  তবে এটা শুধুমাত্র যারা  ২ লক্ষ টাকা মাসিক বেতন পান, তাদের জন্য৷ এছাড়া আয়কর আইনের সংযোজিত ২০৬এবি ধারায় বলা হয়েছে, যাঁরা উচ্চ হারে টিডিএস দেন কিন্তু আইটিআর দাখিল করেন না, তাঁদের টিডিএসের পরিমাণ দ্বিগুণ হতে পারে।

২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে ৭৫ বছরের বেশি বয়সিদের ট্যাক্স জমা দিতে হবে না। পেনশন বা স্থায়ী আমানতের সুদের উপর নির্ভরশীল প্রবীণ নাগরিকদের এই ছাড় দেওয়া হয়েছে।

প্রি-ফিল্ড আইটিআর ফর্ম পাওয়া যাবে–

২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে পৃথক করদাতাদের একটি প্রি-ফিল্ড আইটিআর ফর্ম সরবরাহ করা হবে৷

লিভ ট্রাভেল কনসেশন (এলটিসি)-এর বিপরীতে নগদ ভাতায় কর ছাড় দেওয়া হবে৷