থাকবে উচ্চ মানের ক্যামেরা কোয়ালিটি, Jio Phone Next 4G সম্পর্কে জেনে নিন পাঁচটি অজানা তথ্য

আপনিও কি জিও ফোন নেক্সট কেনার কথা ভাবছেন ? তাহলে এখনি জেনে নিন এই জিও ফোন নেক্সট সম্পর্কে পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ অজানা তথ্য। কথা ছিল, রিলায়েন্স জিও ‘জিও ফোন নেক্সট’ গণেশ চতুর্থীর দিন অর্থাৎ ১০ ই সেপ্টেম্বর লঞ্চ করবে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সংস্থাটি একটি প্রেস রিলিজের মাধ্যমে, তাদের এই আপকামিং এন্ট্রি লেভেল অ্যান্ড্রয়েড ফোনের লঞ্চের তারিখ দিওয়ালি অব্দি পিছিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করে। অনুমান করা হচ্ছে, আগামী ৪ ঠা নভেম্বরের আগে বাজারে আসবে ফোনটি।

প্রসঙ্গত,টেক জায়ান্ট গুগলের সাথে হাত মিলিয়ে ডেভলপ করা এই ফোন কে ভারতের সব থেকে সস্তা ৪ জি স্মার্ট ফোন বলা হচ্ছে। যদিও ভারতে এই জিও ফোন নেক্সট এর দাম কত রাখা হবে তা নিয়ে নিশ্চিত করেনি রিলায়েন্স জিও। তবে সম্প্রতি এই ফোনের এমন কিছু ফিচার ফাঁস হয়েছে, যা টেকপ্রেমীদের কৌতুহল অনেকখানি মেটাবে।

চলুন লঞ্চের আগে এই ফোনের ব্যাপারে কয়েকটি অজানা তথ্য জেনে নেওয়া যাক….

১) রিলায়েন্স জিও ও গুগলের যৌথ উদ্যোগে ডেভলপ করা এই ফোন অ্যান্ড্রয়েড ১১ এর গো এডিশন বিশিষ্ট অপারেটিং সিস্টেমে চলবে। অ্যান্ড্রয়েড গো হলোএন্ড্রয়েডের একটি স্ট্রিপড ডাউন ভার্শন। এটি সীমিত হার্ডওয়ার ক্ষমতা সম্পন্ন লো এন্ড মোবাইলে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

২) অ্যাপ ডাউনলোড করার জন্য জিও ফোন নেক্সট ফোনে গুগল প্লে স্টোর ব্যবহার করতে পারবেন ইউজাররা। ফোনে গুগোল ডুও গো, গুগল ক্রোম গো অ্যাপ প্রিইন্সটল থাকতে পারে।

৩) আপকামিং জিও ফোনে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর সাপোর্ট পাওয়া যাবে। এই ফোনে অ্যাপ অ্যাকশন ফিচার সামিল থাকবে, যা গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট কে ডিভাইসে থাকা জিও অ্যাপ এর সাথে সংযুক্ত করার মাধ্যমে ইউজারদের দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা প্রদান করবে। ফলে লেটেস্ট ক্রিকেট স্কোর বা ওয়েদার আপডেট ছাড়াও, জিও সাভান ও মাই জিও অ্যাপ এ ব্যালেন্স চেক করতে ও গুগল এসিস্টেন্ট ব্যবহার করা যাবে।

৪) জিও ফোন নেক্সট ফোনে একটি বিশেষ ক্যামেরা অ্যাপ থাকবে। যার সাহায্যে রাতে বা কম আলোতে পরিষ্কার ছবি তোলা যাবে। এতে এইচডি আর মোড ও পাওয়া যাবে।

৫) এই ফোনে রিড অ্যালাউড এবং ট্রান্সলেট নাও ফিচার থাকবে।

এই ফোন সম্পর্কে যে পাঁচটি তথ্য এখনো পর্যন্ত জানা যায় নি চলুন দেখে নেওয়া যাক এক নজরে :-

১) গুগোল বা রিলায়েন্স জিও কোন সংস্থা ই এই ফোনের দাম কত হবে তা জানায়নি। কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে এই ফোনের দুটি মডেল থাকবে। যার মধ্যে বেসিক মডেলের দাম ৩৪৯৯ টাকা আর এডভান্স মডেলের দাম ৭০০০ টাকা।

২) ক্যামেরা ফ্রন্টের ব্যাপারেও মুখে কুলুপ এঁটেছে সংস্থা দুটি। তবে জানা গেছে, এই ফোনে সম্ভবত ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা ও ৮ মেগা পিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা সহ আসতে পারে।

৩) ব্যাটারি ও প্রসেসর সম্পর্কেও নিশ্চিতভাবে কিছু জানানো হয়নি। যদিও টিপস্টার দের দাবি এই ফোনে১.৩ গিগাহার্টজ ক্লক স্পিড এর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ২১৫ চিপসেট এবং ২৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি থাকবে।

৪)এই ফোনের রাম ও স্টোরেজ ক্যাপাসিটি তথ্য অন্তরালে রয়েছে।

৫) এই ফোনের লুক বা কালার অপশন সম্পর্কে এই মুহূর্তে কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই।