ভারতের মাটিতে হবে তাইওয়ানের বিখ্যাত ল্যাপটপ নির্মাতা কোম্পানির কারখানা,পাওয়া যাবে কর্মসংস্থান

দেশের বিভিন্ন রাজ্যের উপর যদি বিচার করে বিনিয়োগ করে দেখা যায়, তাহলে সেই দিক থেকে ভারতের রাজ্য উত্তর প্রদেশ বাকি দেশের অন্য রাজ্যের থেকে প্রযুক্তি- বিদ এবং উন্নতির দিকে অনেক এগিয়ে। এই গত বছর থেকে চলতে থাকা করোনা মহামারির মধ্যে দিয়েও উত্তর প্রদেশ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এর সরকার , নানা ধরনের বাণিজ্যিক দিকে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা দিয়ে ব্যাবসা আরও সহজ করে তোলার জন্য টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি থেকে আরম্ভ করে নানা নাম করা বিখ্যাত বিশ্বস্তরীয় কোম্পানিগুলো উত্তর প্রদেশের নয়ডায় তাদের নিজেদের বাণিজ্যিক ব্যবসা স্থানান্তরিত করে নিতে চাইছে। আর তাই ঠিক এই ভাবেই নাম যোগ হলো তালিকায় Dixon Technologies এর নাম।

তাইওয়ান দেশের ল্যাপটপ নির্মাতা কোম্পানি ACER এর সাথে যুক্ত Dixon Technologies হয়েছে। কিছু সূত্র থেকে পাওয়া প্রাপ্ত খবরের অনুযায়ী, Dixon Technologies এবার ভারতের মাটিতেই ACER ল্যাপটপ এর নির্মাণ এর কাজ শুরু করবে। Dixon Technologies সংস্থা তাঁদের নতুন করে ল্যাপটপ নির্মাণ এর প্ল্যান্ট নয়ডায় বসাতে চলেছে। নয়ডাকে টেকনোলজি অর্থাৎ প্রযুক্তির হাব বানানোর পরিকল্পনার জন্য উত্তর প্রদেশ রাজ্যের কাছে আরও একটি বড় মাপের পদক্ষেপ হিসেবে গ্রহণ করা হচ্ছে এটিকে।

ভারতের মাটিতে এবার নতুন এই কম্পিউটার তৈরির প্ল্যান্ট হওয়ার কারণে যেমন একদিক থেকে উত্তর প্রদেশ রাজ্যে কর্মসংস্থান এর সুযোগ হবে, ঠিক সেরকমই ল্যাপটপ আরও সস্তা দামে পাওয়ার সুযোগ সুবিধা ও পাওয়া যেতে পারে। বর্তমানে উত্তর প্রদেশ রাজ্যে যোগী আদিত্যনাথের মুখ্যমন্ত্রী থাকা কালীন “ইজ অফ ডুইং বিজনেস” অর্থাৎ ব্যাবসা করার সুবিধা এর র‍্যাঙ্ক আগের থেকে অনেক ভালো হয়েছে। দেশের মধ্যে এক সময় ইজ অফ ডুইং বিজনেস র‍্যাঙ্ক দেশের তালিকা তে ১৪ তম নম্বর এ থাকা উত্তর প্রদেশ রাজ্য এখন বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে পৌঁছে গেছে।

Advertisements

আর ঠিক এই কারণের জন্যই, নানা নাম করা ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি থেকে শুরু করে অনেক ভারতীয় কোম্পানিগুলোও আজকের দিনে উত্তর প্রদেশ কে তাঁদের কারখানা খোলার জায়গা হিসাবে বেছে নিয়েছে । আর ঠিক সেই জন্যই Dixon Technologies নামক সংস্থা ঘোষণা করে জানিয়েছে যে, তাইওয়ান দেশের সেই কোম্পানি এবার থেকে তাঁদের ল্যাপটপ ভারতেই নির্মাণ করবে। আর সেই কারণে তাঁরা ACER নামক সংস্থা এর সাথে কিছু ব্যাবসা ভিত্তিক চুক্তি হয়েছে। সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, ওই প্ল্যান্ট গুলোতে প্রতিবছর ৫ লক্ষের অধিক ল্যাপটপ তৈরি হওয়ার কাজ হবে।

Advertisements