করোনা ভ্যাকসিন এলেও স্বস্তি নেই, মানবজাতির জন্য বেরিয়ে এল বড়সড় দুঃসংবাদ

বর্তমানে করোনা ভাইরাস রীতিমতো সারাবিশ্বে সঙ্কট সৃষ্টি করেছে। দিন দিন বেড়েই যাচ্ছে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর  সংখ্যা। এই ভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচার জন্য একটিমাত্র পথ যা হল লকডাউন পালন করা। কিন্তু এই লকডাউন এর ফলে বহু মানুষের জীবিকার ও সর্বনাশ হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। এছাড়াও একটি দেশে যদি দীর্ঘদিন ধরে লকডাউন চলতে থাকে তাহলে দেশটি অর্থনৈতিক দিক থেকে পুরোপুরি ভেঙে পড়তে পারে। তাই ভবিষ্যতে করোনা মুক্ত হলে দেশের আর্থিক সংকট কতটা দূর করা যাবে সে বিষয়ে তৈরি হচ্ছে নানান সংশয়।

আর এমন একটা সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে তীব্র আশঙ্কার কথা শোনালেন বিশ্বখাদ্য প্রকল্পের মুখ্য অর্থনীতিবিদ আরিফ হুসেন। খবর সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি জানান যে বিশ্ব খাদ্য প্রকল্প অর্থনীতিবীদ জানিয়েছেন, খুব তাড়াতাড়ির মধ্যে যদি কোন ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তাহলে প্রায় 27 কোটি মানুষকে অভুক্ত থাকতে হবে। আর এই রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে সমস্ত দেশের মানুষকে একজোট হয়ে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করার জন্য আর্জি জানিয়েছেন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব।

তবে এই সমস্ত কিছুর সম্মুখীন হতে হচ্ছে তার কারণ এখনো পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পারা যায়নি। তারফলে সমস্যা আরো দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেডরস অ্যাডানম গ্যাব্রিয়েসাস। যেহেতু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে পালন করতে হচ্ছে লকডাউন তার ফলে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষদের জীবন-জীবিকা কার্যত সংকটের মুখে পড়েছে। যেহেতু নিয়ম মানতে বাধ্য সাধারণ মানুষ তাই এখন কাজকর্ম ছেড়ে দিয়ে সবাইকে ঘরে বসে থাকতে হচ্ছে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে দেশ যদি বন্ধ থাকে তাহলে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা তলানিতে ঠেকবে তা আমরা সবাই জানি। তাই এখন অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ঠিক করার জন্য দেশের সকলকে মিলে একসাথে কাজ করতে হবে। তবে ঠিক কবে এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয় সেদিকে নজর থাকবে সকলের।

More Stories
6 লাখেরও বেশি কেন্দ্রীয় সরকারি কাজে রয়েছে শূন্যপদ,1.34 লাখ পদে নিয়োগ 2019-2020 এর আর্থিক বছরেই…