Skip to content

‘৫০টা বৈচিত্র্য আছে’, বেশরম রং নিয়ে এবার মুখ খুললেন কোরিওগ্ৰাফার বৈভবী মার্চেন্ট, জানালেন নানান অজানা কথা

বয়কট, শব্দটির আদৌ মানে মানুষ জানুক কি না জানুক, কোন জায়গায় আদৌ প্রয়োগ করতে হয় সেটা না জানলেও স্রোতে গা ভাসিয়ে দিতে বেশ পারে জনগণ। সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকে যে বয়কট শব্দটি মানুষ ব্যবহার করতে শুরু করেছিল তা এখনো বর্তমান। এই বয়কট শব্দটির হাত থেকে বাঁচতে পারলেন না স্বয়ং কিং খান। চার বছর পর বড়পর্দায় যখন তিনি ফিরে আসছেন, তখন চারিপাশে আনন্দের থেকে বেশি দেখা গেল বয়কটের বন্যা।

ডিসেম্বর ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছিল সিনেমার প্রথম গান বেশরম রং, সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে গেল তরজা। গেরুয়া রঙের বিকিনি পড়ে কিভাবে নাচলেন দীপিকা পাড়ুকোন, কেন এত অশ্লীল পোশাক পরলেন তিনি, শাহরুখ খানকে কতটা খারাপ দেখতে লাগছিল এই নিয়ে চর্চা শুরু হয়ে গেল চারিদিকে। সিনেমা হলে আসার আগেই বয়কট শব্দটির আগমন হয়ে গেল আরো একবার।

এই গানটি মিউজিক দিয়েছিলেন বিশাল এবং শেখর। গানের কথা লিখেছিলেন কুমার। কন্ঠ দিয়েছিলেন শিল্পা রাও, ক্যারালিশা মন্টিরো, বিশাল এবং শেখর। স্প্যান রিলিক্স দিয়েছিলেন বিশাল দাদলানি। কোরিওগ্রাফি করেছিলেন বৈভবী মার্চেন্ট। যে গান নিয়ে এত চর্চা চারিদিকে, যে গানটি মুক্তির পরেই শুধু গানটি নয় সম্পূর্ণ সিনেমাটি বয়কট করার দাবি করলেন সেই গানটি সম্পর্কে এবার সর্বসমক্ষে কথা বললেন গানের কোরিওগ্রাফার অর্থাৎ বৈভবী মার্চেন্ট।

পাঠান সিনেমার বেশরম রং, গান নিয়ে নানা অজানা কথা বললেন তিনি। বলেন শাহরুখ খানের সম্পর্কেও কিছু কথা। বৈভবী বলেছেন, শাহরুখ খান একজন ভীষণ নম্র স্বভাবের মানুষ। তিনি যে কাউকে মুগ্ধ করতে পারেন যেকোনো সময়। সিনেমার সব থেকে সাধারণ মুহূর্তকে অসাধারন করে তুলতে পারেন তিনি। একটা আলাদা জাদু এবং রহস্য আছে শাহরুখ খানের মধ্যে।

তিনি আরো বলেন, শাহরুখ খান খুব সাধারন কিন্তু শর্ট দেওয়ার কথা যখন আসে তখন তিনি একজন নির্ভেজাল অভিনেতা। তিনি দূরেও তাকাবেন আবার ফিরেও তাকাবেন। আপনি শাহরুখ খানের কাছ থেকে পাবেন বহু বৈচিত্র। শাহরুখ খানের কাছে যদি আপনি এক চান, তাহলে এক মিলিয়ন পেয়ে যাবেন।প্রসঙ্গত, পাঠান সিনেমায় গুপ্তচরের ভূমিকায় দেখা যাবে শাহরুখ খানকে। রয়েছেন জন আব্রাহাম এবং দীপিকা পাডুকোন। পরিচালকের আসনে রয়েছেন সিদ্ধার্থ আনন্দ। ২০২৩ সালের ২৫শে জানুয়ারি সিনেমাটি হিন্দি, তামিল এবং তেলেগু ভাষায় মুক্তি পাবে সারা ভারত জুড়ে।