উত্তরাখণ্ডের জলের জন্যই প্লাবিত হয়েছে গোটা কলকাতা, অদ্ভুত দাবি ফিরহাদ হাকিমের

বেশ কয়েক দিন ধরেই আকাশের দিকে লক্ষ্য রাখলে বুঝতে পারবেন আকাশের মুখ ভার গোটা আকাশ ঢেকে রয়েছে অন্ধকারে। গোটা পশ্চিমবঙ্গে একের পর এক ঘূর্ণাবর্তের জেরে বৃষ্টি প্রায় বন্ধ হচ্ছেই না। বেশ কয়েক দিনের বৃষ্টিতে কলকাতা সহ সমগ্র পশ্চিমবঙ্গ একাংশ জলমগ্ন। বিশেষ করে কলকাতায় বহু এলাকায় এখনো জল নামেনি, কোথাও হাঁটুর উপর দিয়ে জল বইছে কোথাও আবার হাঁটুঅব্দি জল।

অবিরাম বৃষ্টি হওয়ায় গঙ্গার জল দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে। শহরের জমা জল এর পরিস্থিতি নিয়ে এক অদ্ভুত দাবি করে বসলেন কলকাতার পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।পুরো প্রশাসকের কথায় ‘এটা আব নরমাল বৃষ্টি হচ্ছে’। এক কথায় বলতে গেলে সমগ্র কলকাতা জলের নীচেতে। তিনি দ্রুত সেচ দপ্তর কে জানিয়েছেন কলকাতা সংলগ্ন খালগুলি তালা তাড়াতাড়ি পরিষ্কার করার। যাতে খুব সহজেই জমে থাকা জল বেরিয়ে যেতে পারে।

তবে এই নিম্নচাপের টানা বৃষ্টি আসল দায়ী বলে মনে করেন না কলকাতার প্রশাসক। তার কথায় উত্তরাখণ্ডের মেঘ ভাঙ্গা বৃষ্টি এই অবস্থা। এছাড়াও তিনি দাবি করেন ‘ গঙ্গাতে ও জল থৈ থৈ করছে অর্থাৎ উপর থেকে উত্তরাখণ্ডের জলটা হইহই করে আসছে আমি কাউকে দোষ দিচ্ছিনা উত্তরাখণ্ডে মেঘ ভেঙে বৃষ্টি হচ্ছে এখানেও তাই হচ্ছে এটা মনে রাখতে হবে গত ৩০ বছরে এমন বৃষ্টি দেখেনি গোটা বাংলা যেটা এই কয়েকদিনে হচ্ছে’।

Advertisements

এর পাশাপাশি ফিরহাদ হাকিম জানান বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে যারা মারা গেছে তাদের পরিবারের পাশে রয়েছে রাজ্য সরকার তাদের পরিবারপিছু ২ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার। তবে ফিরাদ হাকিমের এই মন্তব্যে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিজেপির নবনিযুক্ত রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তার বক্তব্য কলকাতার পুরো প্রশাসক বোধহয় নদী বিজ্ঞান নিয়ে গবেষণা করেছেন আসলে সবটাই তার অজুহাত’। তবে মোটের ওপর টানা বৃষ্টিতে কলকাতা সহ সমগ্র জেলাগুলির মানুষ বিপন্ন।

Advertisements