দেশীয় উৎপাদন বাড়াতে ভোলবদল হচ্ছে টেলিকম শিল্পে, তৈরি হচ্ছে ৪০ হাজার কর্মসংস্থান

বিভিন্ন শিল্পে দেশীয় উৎপাদন বাড়াতে  নিত্যনতুন  পদক্ষেপ নিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর মধ্যে অন্যতম হল টেলিকম শিল্প। এই ক্ষেত্রেও ভোলবদল হচ্ছে৷ দেশের ১০টি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে উৎপাদন ক্ষমতা এবং  রফতানি বাড়ানোর জন্য উৎপাদন-ভিত্তিক উৎসাহ ব্যবস্থা  বা প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেনটিভ (PLI) প্রকল্পকে অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র। স্মার্টফোন এবং অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স সরঞ্জামগুলিকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে৷

জানা গিয়েছে, টেলিকম সরঞ্জাম প্রস্তুতের জন্য PLI এর আওতায় ১২,১৯৫ কোটি টাকার একটি উৎসাহ প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে।  এই প্রকল্পের আওতায় আগামী পাঁচ বছরে ২,৪৪,২০০ কোটি টাকার টেলিকম সরঞ্জাম উৎপাদন করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে৷  এর ফলে  ৪০ হাজার প্রত্যক্ষ এবং অপ্রত্যক্ষ কর্মসংস্থানের প্রত্যাশা করছে কেন্দ এর ফলে রফতানি থেকে আসবে ১.৯৯ লক্ষ কোটি টাকা এবং শুল্কবাবদ যে  রাজস্ব আয় হবে তার পরিমাণ ১৭,০০০ কোটি টাকা। এই প্রকল্পগুলিতে উৎপাদন বাড়াতে এমএসএমই-র একাধিক পণ্য বিভাগে বিনিয়োগের সুবিধা থাকবে।

করোনা আবহে দুর্বল ভেঙে পড়া  অর্থনীতির চাকাকে দ্রুত ঘোরাতে উৎপাদনে জোর দিতে  চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই উদ্দেশে PLI প্রকল্প  এর প্রচার করা হচ্ছে। যেহেতু উৎপাদন ক্ষেত্রে আরও কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা রয়েছে, তাই পিএলআই প্রকল্পকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।

Paytm CEO বিজয় শেখর শর্মার সফলতার নানান অজানা কথা, A Success Story of Vijay Shekhar Sharma

PLI এর ব্যাপারে সরকার আশা করছে, টেলিকম সেক্টর ৩,০০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ নিয়ে আসবে এবং বৃহত্তর পর্যায়ের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। এই মুহুর্তে কর্মসংস্থান তৈরিই সরকারের মূল লক্ষ্য৷ সে কারণেই এ বার পরিকাঠামোগত এক বড়সড় বিনিয়োগের ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ ছাড়াও বিভিন্ন ওষুধ তৈরি, বিভিন্ন বস্ত্রসামগ্রী, খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন এবং উচ্চক্ষমতাশীল সৌর ফটোভোল্টিক মডিউল তৈরি-সহ নানা বিষয়  উৎসাহ দেবে সরকার। এর জন্য পাঁচ বছরে মোট ১,৪৫,৯৮০ কোটি টাকার সংস্থান রাখা হয়েছে।