প্রধানমন্ত্রী মোদির সময়কালে শক্তি কমেছে ভারতীয় পাসপোর্টের, যদিও উল্টো দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

ভারতীয় পাসপোর্টের (Indian passport)ক্ষমতা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে তা বলাই বাহুল্য,আর বর্তমানে এই ধরনের পতন মনমোহন সিং এর আমলের থেকেও বেশি পরিমাণে হচ্ছে। যদিও বিজেপি শিবির দাবি করে যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিশ্বে ভারতীয় পাসপোর্টের গুরুত্ব ও ক্ষমতা বৃদ্ধি হয়েছে। সম্প্রতি গোয়ায় বিজেপি কর্মীদের এক সভায় ভারতীয় পাসপোর্ট বাড়ানোর দাবি জানিয়েছিলেন খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

অমিত শাহ ১৪ অক্টোবর গোয়ায় বিজেপি কর্মীদের একটি সম্মেলনে ভাষণ দিচ্ছিলেন। সেখানে তিনি দাবি করেন, মোদীর নেতৃত্বে ভারতের সম্পর্কে বিশ্বব্যাপী ধারণা বদলে গিয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, “ভারতীয় পাসপোর্ট দেখানোর আগে এবং এখন অনেকে বদলেছে। বিদেশি কর্মীদের এখন ভারতীয় পাসপোর্ট দেখালে তাদের চোখে-মুখে জল চলে আসে। তারা প্রশ্ন করে বসেন আপনি কি মোদিজির দেশ থেকে এসেছেন?”

যদিও শাহ এটি উল্লেখ করেননি, তার বক্তৃতা মনমোহন সিং যুগের সাথে একটি স্পষ্ট তুলনা রয়েছে। কিন্তু পরিসংখ্যান দেখায় যে ২০১১ সালে বিশ্ব পাসপোর্ট তালিকায় ১৯৯ টি দেশের মধ্যে ভারত ৭ নং স্থানে ছিল৷ কিন্তু ২০২১ সালে এটি ৯০ নম্বরে এসে পৌঁছেছে৷ একটি দেশের পাসপোর্টের গুরুত্ব নির্ভর করে তার নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই কতগুলি দেশে ভ্রমণ করতে পারে তার উপর নির্ভর করে৷ গত ১০ বছরের মধ্যে ভারত এই ধরনের দেশের সংখ্যা পাঁচে উন্নীত করেছে। কিন্তু অন্যান্য দেশের মতো ভারতের খুব একটা বেশি উন্নতি হয়নি। যে কারণে, বিশ্ব পাসপোর্ট তালিকায় ভারতীয় পাসপোর্ট এর শক্তি গত দশ বছরের মধ্যে ৮ থেকে ৯০ তে নেমে এসেছে।

একটি দেশের পাসপোর্টের গুরুত্ব বা শক্তি এই পাসপোর্ট তালিকা দেখেই নির্ণয় করা যায়। এই তালিকাটি প্রধান ভাবে ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন (IATA) দ্বারা তৈরি করা হয়েছিল। জাপান এবং সিঙ্গাপুর ১৯৯ টি দেশের সর্বশেষ তালিকায় শীর্ষে রয়েছে। উভয় দেশের নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই ১৯৯ টি দেশের মধ্যে ১৯৩ টি দেশে ঘুরতে যেতে পারেন। ১৯০ টি দেশের সঙ্গে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে জার্মানি ও দক্ষিণ কোরিয়া।

আর তৃতীয় স্থানে রয়েছে চারটি দেশ ফিনল্যান্ড, ইতালি, লুক্সেমবার্গ এবং স্পেন যাদের নাগরিক ভিসা ছাড়া ১৮৯টি দেশে ঘুরে দেখতে পারবেন। এবং এই তালিকায় আছে আফগানিস্তানের অবস্থান ১১৭তম জায়গায়। তার তার ঠিক কিছুটা উপরে পাকিস্তান ১১৩ এবং বাংলাদেশ ১০৮ নম্বরে আছে সেই তালিকার। এই তালিকায় প্রায় সময় প্রতিটি দেশের অবস্থান ওঠানামা করতে থাকে। এই তালিকাটি ২০০৬ সাল থেকে প্রকাশিত হয়ে আছে। গত ১০ বছর ধরে কিন্তু ভারত ২০২১ এর মতো এত পরিমাণে নিচে নেমে আসেনি। আর সেই তালিকাতে ভারতের অবস্থান ২০১৩ সালে খুবই ভালো ছিল। ভারত এর জায়গা সেই সময়টালিকা তে ৬৪ তম স্থানে ছিল।