রাজ্য সরকার অসংগঠিত শ্রমিকদের দিচ্ছে মাথাপিছু 1000 টাকা, এখনই আবেদন করতে..

যেভাবে করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে তা দেখে একপ্রকার সকলেই হতভম্ব। আর এই করোনা মহামারীর জেরে শুধু বিদেশেই নয় ভারতের মতো জনবহুল দেশেও জারি করা হয়েছে দেশজুড়ে লকডাউন, যা গত 24 শে মার্চ থেকে জারি করা হয়েছে আর আগামী 3 মে পর্যন্ত জারি রয়েছে এই লকডাউন। তবে এই লকডাউনের কারণে বহু মানুষ এক প্রকার কর্মহীন হয়ে পড়েছে, আর এই লকডাউনের ফলে সবচেয়ে বিপাকে পড়েছে অসংগঠিত কর্মক্ষেত্রে কর্মরত মানুষেরা ও দিন আনা দিন খাওয়া মানুষেরা।

তবে তাদের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছেন তাদেরকে এককালীন হাজার টাকা করে দেওয়া হবে “স্নেহের পরশ” প্রকল্পের দরুন। এই প্রকল্পে দরুন সে সকল মানুষের এককালীন পেয়ে যাবে হাজার টাকা করে তবে এখন প্রশ্ন কীভাবে করবেন এই প্রকল্পের জন্য আবেদন, আর সেটাই থাকবে আজকের আমাদের আলোচ্য বিষয়। গত 15ই এপ্রিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন আর এর পাশাপাশি তিনি ঘোষণা করেছেন এই প্রকল্পে দরুন টাকা দেওয়ার কাজ চালু করা হয়েছে 15 এপ্রিল থেকে আর যা আগামী 15 ই মে পর্যন্ত চলবে।

এক্ষেত্রে অসংগঠিত কর্মরত শ্রমিক, রিকশা চালক এবং সকল ক্ষেত্রের মানুষেরা এককালীন হাজার টাকা করে পেয়ে যাবেন এবং সেই টাকা নিজেদের প্রয়োজন মতো কাজে লাগাতে পারবেন তারা। তবে এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হবার জন্য কী কী করতে হবে আপনাকে তা দেখে নিন… সবার প্রথমেই এই প্রকল্পের আওতায় আসতে গেলে আপনাকে সর্বপ্রথম পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে। এর পাশাপাশি উপভোক্তার থাকতে হবে উপযুক্ত ভোটার আইডি কার্ড অথবা আধার কার্ড প্রমানপত্রের জন্য।

দ্বিতীয়তঃ এক্ষেত্রে দিতে হবে একটি বার্ষিক আয়ের শংসাপত্র। যেহেতু এই প্রকল্পটি দরিদ্র শ্রেণীর মানুষদের জন্য আনা হয়েছে তাই তারাই কেবল মাত্র এই প্রকল্পে অংশগ্রহণ করতে পারবেন সকলের জন্য এই প্রকল্পটি নয়।

তৃতীয়তঃ এক্ষেত্রে উপভোক্তার অবশ্য একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে, তবে এক্ষেত্রে থাকছে না কোন বিপিএল, এপিএল, এসটি, এসসি বলে কিছু। প্রত্যেক মজুর পরিবারই পেয়ে যাবেন এককালীন হাজার টাকা করে।

বলে রাখি এই প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য সেই উপভোক্তাকে একটি ফর্ম ফিলাপ করতে হবে যে ফর্ম টি ফিলাপ করে জমা দিতে হবে ভিডিও অথবা এসডিওতে।আর এক্ষেত্রে কলকাতা পৌর এলাকার বাসিন্দাদের ফর্ম জমা দিতে হবে কলকাতা মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনে। আবেদনকারী কেবলমাত্র একটি ফর্ম জমা দিতে পারবেন,একসাথে অনেকগুলো ফর্ম জমার করতে পারবেন না এক্ষেত্রে। আর পরবর্তীকালে এর সত্যতা যাচাই করে টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে আপনার ফর্মে পূরণ করা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে।

Related Articles

Close