আপৎকালীন পরিস্থিতির জেরে আবারো অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করল রাজ্য সরকার…

একেই বেকারের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে, তারপর আবার করোনা ভাইরাস এর জেরে বিশ্বের অর্থনৈতিক মুক্তির পড়েছে। সব মিলিয়ে পুরো বিষয়টা একটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে এসে দাঁড়িয়েছে।এমন কী করোনা ভাইরাসের প্রভাব কর্মসংস্থানের ওপরও পড়তে পারে বলে বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ মনে করেছেন। করণা ভাইরাসের প্রভাবে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তার মোকাবিলা করার জন্য চিকিৎসা পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের পুননিয়োগ করার বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে।

চিকিৎসা পরিষেবা সচল রাখতে অবসরপ্রাপ্ত ডাক্তার থেকে শুরু করে নার্স সবাইকে পুনর্নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। অবসর হওয়ার পর পরিষেবা দিতে ইচ্ছুক এমন ডাক্তার, নার্স, প্যারামেডিকেল স্টাফদের দুই বছরের জন্য পুনর্নিয়োগ করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ দপ্তর। রিপোর্ট অনুসারে আগামী দুবছরে 2000 ডাক্তার, নার্স এবং প্যারামেডিক্যাল স্টাফ অবসর নিয়েছেন।

এক ধাক্কায় অনেক জন অবসর নেওয়ার ফলে চিকিৎসা পরিষেবা ঘাটতি মেটানোর জন্য অবসরের পুনরায় নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর। এখনো পর্যন্ত বাংলার ডাক্তাররা অন্তত 65 বছর পর্যন্ত কাজ করতে পারেন। নার্সিং স্টাফদের জন্য অবসর নেওয়ার বয়স 62 বছর এবং প্যারামেডিকেল স্টাফদের জন্য অবসর নেওয়ার বয়স 60 বছর।খবর অনুযায়ী 2011 সালের পর থেকে এখনও পর্যন্ত সমস্ত সরকারি হাসপাতালে 30 হাজারেরও বেশি বেড সংখ্যা বেড়েছে।

Advertisements

নতুন করে 9 টি মেডিকেল কলেজ তৈরি হয়েছে।এবং 42 টি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। ফলে হাসপাতাল গুলোতে যেরকম অনুপাতে পরিষেবা বাড়ানো হচ্ছে সেই অনুপাতে ডাক্তার, নার্স বা প্যারামেডিকেল স্টাফ নেই। এছাড়া নতুন করে কয়েক হাজার নার্স নিয়োগের প্রস্তুতি চলছে। নতুন করে নার্স নিয়োগের পরেও বিপুল ঘাটতি রয়ে গেছে। আর এই ঘাটতি মেটানোর জন্য অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের পূর্ণ নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

Advertisements