বাড়ানো হল স্কুল-কলেজ বন্ধের মেয়াদকাল, তবে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে ঘোষিত দিনেই! নয়া ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের..

ভারতে করোনা সংক্রমণ যে ভাবে বাড়ছে তাতে আগামী দিনে যে আরও কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে তা স্পষ্টভাবে বোঝা যাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গেও করোনা সংক্রমণ দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে। লকডাউন ঘোষণা করার আগের থেকেই রাজ্য সরকার স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছিল। এখনো পর্যন্ত 30 শে জুন পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। কারণ ছাত্র- ছাত্রীদের নিরাপদ রাখা সরকারের কর্তব্য তারপর আসবে পড়াশোনা। সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীর অভিভাবকদেরও একই বক্তব্য।

অভিভাবকরাও চাইছেন যতদিন না পর্যন্ত ভারত থেকে এই ভাইরাস দূর হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত স্কুল- কলেজ বন্ধ থাকুক সরকার। এখনো অবধি 30 জুন পর্যন্ত সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হল করোনা সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে তাতে মনে করা হচ্ছে আগামী মাস অর্থাৎ জুলাই মাসেও স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে পারে রাজ্য সরকার। বুধবার নবান্নে একথা জানিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষার জন্য যে দিন গুলি নির্ধারিত করা হয়েছে সেই দিনেই পরীক্ষা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিন অর্থাৎ বুধবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন,’ 30 শে জুন পর্যন্ত স্কুল ছুটি। কিন্তু এখন যা মনে হচ্ছে তাতে জুলাই মাসেও স্কুল খুলবে না। তবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা গুলো নির্ধারিত দিনে নেওয়া হবে।’ প্রসঙ্গত বেশ কয়েকদিন আগেই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, উচ্চমাধ্যমিকের বাকি তিনটি পরীক্ষা হবে আগামী 2,6 এবং 8 জুলাই। গত মার্চ মাস থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য বন্ধ রয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ।

এবার ঠিক কবে স্কুল খুলবে সেই বিষয়ে চিন্তায় রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে অভিভাবক এবং পড়ুয়ারাও। সম্প্রতি 27 শে মে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘোষণা করেন আগামী 30 জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল সহ কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় গুলিও। এরপর বুধবার মুখ্যমন্ত্রী জানান, জুলাই মাসেও স্কুল খোলার কোনো সম্ভাবনা আমি দেখতে পাচ্ছি না। তবে উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলো নির্ধারিত সময়ে নিয়ে নেওয়া হবে।