বাংলায় বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৭, তৃণমূল থেকেই ১৭

২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে বাংলায় প্রচারে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তখন নরেন্দ্র মোদি  দাবি করেছিলেন তৃণমূলের ৪০ জন বিধায়ক তাঁর সংস্পর্শে রয়েছেন। অর্থাৎ তৃণমূলের ৪০ জন বিধায়ক  তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করবেন এমন ইঙ্গিত তিনি দিয়েছিলেন।

ইতিমধ্যেই তৃণমূলের ১৭ জন বিধায়ক তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, দুই জন  বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন  শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।  বিজেপির বর্তমান বিধায়ক সংখ্যা  ৬ থেকে ২৭ হয়েছে৷  যদি শুভেন্দু অধিকারি এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ না করতেন তাহলে সংখ্যাটা দাঁড়াতো ২৯।

বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রতীক পদ্মফুলে  জয়লাভ করেছিলেন ১) মনোজ তিজ্ঞা (মাদারিহাট), ২) নীরাজ জিম্বা (দার্জিলিং), ৩) জোয়েল মুর্মু (হাবিবপুর), ৪) স্বাধীন কুমার সরকার (বৈষ্ণবনগর), ৫) আশীষ কুমার বিশ্বাস (কৃষ্ণগঞ্জ) এবং ৬) পবন সিং (ভাটপাড়া)।

বর্তমানে শুভ্রাংশু রায়,  সব্যসাচী দত্ত, সুনীল সিং,  উইলসন চম্পামারি, শোভন চ্যাটার্জি, মনিরুল ইসলাম, মিহির গোস্বামী, বিশ্বজিত দাস, বনশ্রী মাইতি, সৈকত পাঁজা, শীলভদ্র দত্ত, শুক্রা মুন্ডা, বিশ্বজিৎ কুণ্ডু, প্রবীর ঘোষাল,  শুভেন্দু অধিকারী,বৈশাখী ডালমিয়া এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মোট ১৭ জন তৃণমূল বিধায়ক গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন।

পুরুষের শুক্রাণুর গুণগত মান কমাতে পারে কোভিড -১৯ , সমীক্ষায় বেরিয়ে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

বামফ্রন্ট থেকে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন অশোক দিন্দা, তাপসী মন্ডল, দিপালী বিশ্বাসের মত বিধায়করা। জাতীয় কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে এসেছেন বিধায়ক দুলাল বর, সুদীপ মুখার্জি, অরিন্দম ভট্টাচার্য।

এই দলবদলের মাঝেই রবিবার হাওড়ার ডুমুরজলায় বিজেপিতে যোগদান মেলা থেকে শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেন, “আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কলকাতা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা তৃণমূল কংগ্রেস ফাঁকা করে দেবো।” এই দাবিকে ঘিরে জোর জল্পনা বঙ্গ রাজনীতিতে। এখন দেখার বিষয় একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে আর কোন কোন নেতা বিধায়ক বা অন্য কোনো হেভিওয়েট ব্যক্তিত্ব  দল ত্যাগ করে নাম লেখাচ্ছেন গেরুয়া শিবিরে।