RBI এর তরফে চেক পেমেন্টে লাগু নতুন নিয়ম, না জানলে পড়তে পারেন বড়োসড়ো বিপদে

চেক লেনদেনের ক্ষেত্রে ১ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের বিভিন্ন ব্যাংকে চালু করেছে ‘ পজিটিভ পে ব্যবস্থা ‘।গ্রাহক নিরাপত্তা আরো মজবুত করতেই এই নয়া নিয়ম চালু হয়েছে। চেক সহ বাকি সব প্রকারের লেনদেন সুরক্ষিত রাখতে এই পজিটিভ পে সিস্টেম চালু করা হয়েছে।১ জানুয়ারি ২০২১ থেকে এই সুবিধা শুরু করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। ব্যাঙ্কগুলি বিভিন্ন পর্যায়ে এবার বাস্তবায়ন করেছে।

পজিটিভ পে সিস্টেম কী কারনে সুবিধা জনক চলুন জেনে নেওয়া যাক :-

মূলত চেক থেকে জালিয়াতি রোধ করার জন্য ব্যাঙ্ক গুলিতে এই সুবিধা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এর আগে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক, আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের মতো বড় ব্যাঙ্কগুলি এই পদ্ধতি বাস্তবায়ন করেছে।

এবারে চলুন জেনে নি পজিটিভ পে সিস্টেম কি?

পজিটিভ পে সিস্টেমে ব্যাংকে ৫০ হাজার টাকার বেশি মূল্যে চেক দিলে আগে থেকে জানাতে হবে। এটি একটি স্বয়ংক্রিয় জালিয়াতি সনাক্তকরণ পদ্ধতি। আর বি আই এর এই নিয়ম বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য হলো, চেক এর অপব্যবহার রোধ করা।

পজিটিভ পে সিস্টেম এর অধীনে এসএমএস,ইন্টারনেট ব্যাংকিং, এটিএম বা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে চেক প্রদানকারীকে চেকের তারিখ, গ্রাহকের নাম,অ্যাকাউন্ট নম্বর, মোট পরিমাণ, লেনদেনের কোড এবং ব্যাঙ্কের চেক নম্বর নিশ্চিত করতে হবে। চেক পেমেন্ট করার আগে ব্যাঙ্ক এই তথ্যগুলি আরো একবার দেখে নেবে। যদি কোনো অসঙ্গতি পাওয়া যায়, তাহলে ব্যাংক সেই চেক প্রত্যাখ্যান করবে। এই নিয়মের জেরে প্রবীণ নাগরিকরা যারা নেট ব্যাংকিং বা মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা ব্যবহার করতে পারেন না তারা সমস্যায় পড়তে পারেন।

এর আগে ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া কে রিজার্ভ ব্যাংকের তরফে ভারতীয় ব্যাঙ্ক গুলিকে একটি সুবিধা দিতে নির্দেশ দেয়, যার সঙ্গে সিটিএস লিংকের মাধ্যমে দ্রুত তথ্য যাচাই করা সম্ভব হয়। এর প্রেক্ষিতেই পিপিএস চালু হয় দেশে। অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক ছাড়াও স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংক এর মত অনেক ব্যাংক এই পিপি এস বাধ্যতামূলক করছে।

তবে অ্যাক্সিস ব্যাংকের ক্ষেত্রে ৫ লক্ষ টাকার বেশি পরিমাণে চেক ইস্যু করলে পজিটিভ পে সিস্টেম লাগু হবে।স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের ক্ষেত্রে ৫০,০০০ টাকা বা এর চেয়ে বেশি অংকের টাকার চেক পেমেন্ট এ লাগু করা হবে এই পজিটিভ পে সিস্টেম।