স্পেশাল ট্রেনের সফর নিয়ে নতুন ঘোষণা রেল মন্ত্রকের, এবার থেকে ট্রেনে উঠতে লাগবে না কোনো পরিচয় পত্র

করোনা মহামারীর কারণে লোকাল ট্রেন বন্ধ রয়েছে। লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকলেও স্পেশাল ট্রেন চালাচ্ছে রেল। তবে স্পেশাল ট্রেন চলার ক্ষেত্রে এবার বেশ কিছু ছাড় ঘোষণা করল পূর্ব রেল। এবার থেকে পরিচয় পত্র না দেখালেও চলবে জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত সরকারি কর্মচারীদের। রোজ টিকিট কেটে ঘুরতে পারবেন তারা। প্রাথমিকভাবে শিয়ালদা শাখাতে এই নিয়ম চালু হতে চলেছে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে অন্যান্য শাখাতেও নিয়ম শিথিল করে এই নিয়ম চালু হতে পারে বলে পূর্ব রেলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

লোকাল ট্রেন দীর্ঘ দুমাস ধরে বন্ধ। মেট্রো ও বাস চলছে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে। রাত ৯ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত নাইট কারফিউ জারি করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিস্থিতি এখনো স্বাভাবিক হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন এখনো লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। কাজেই লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা কোনো অবস্থাতেই সম্ভব নয়। চলছে শুধু স্পেশাল কিছু ট্রেন। জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এই ট্রেনে উঠতে পারবেন।

জরুরী পরিষেবার সাথে যুক্ত ব্যক্তিরা ছাড়াও ব্যাংকের লোকেরাও এই স্পেশাল ট্রেনে উঠতে পারছেন কিন্তু ট্রেনে ওঠার আগে স্টেশনে থাকা জিআরপি কে সচিত্র পরিচয় পত্র দেখালে তবে ছাড় মিলছে ট্রেনে ওঠায়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কিছুটা কমেছে। তাই স্পেশাল ট্রেনের ক্ষেত্রে কিছুটা ছাড় দেওয়া হচ্ছে। লোকাল ট্রেন চালু না হলেও এবার থেকে দৈনিক টিকিট কেটে উঠতে পারবেন জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা।

বঙ্গে বিজেপির নতুন সভাপতির দৌড়ে এগিয়ে এই তিন নেতা, পুজোর আগেই সরানো হবে দিলীপকে

তবে সচিত্র পরিচয় পত্র আর দেখাতে হবে না। লোকাল ট্রেন চালু না হলেও মেট্রো পরিষেবা মোটের ওপর স্বাভাবিক করা হয়েছে। পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বাড়ানো হচ্ছে মেট্রোর সংখ্যা। স্মার্ট কার্ডের মাধ্যমে টিকিট কেটে ট্রেনে উঠতে পারছেন যাত্রীরা। জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা ছাড়াও সাধারণ যাত্রীরা ও উঠতে পারছেন মেট্রোয়।