মুছে ফেলা হোক ইংরেজদের দেওয়া ইন্ডিয়া নাম, সোশ্যাল মিডিয়াতে নতুন দাবি কন্ট্রোভার্সি কুইন কঙ্গনার

সোশ্যাল মিডিয়াতে বরাবরই বিতর্কিত মন্তব্য করার জেরে শিরোনামে উঠে আসে বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাওয়াতের (Kangana Ranaut) নাম, সাম্প্রতিক অতীতেও নানা বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি। এমনকি তার বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে তার টুইটার হ্যান্ডেল পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যদিও বেশ কয়েকদিন ধরে তাকে শিরোনামে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না, তবে আবারও তিনি প্রমাণ করে দিলেন তার জুড়ি মেলা দায়। এবার সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে কঙ্গনা রানাউতের নতুন টুইট ভাইরাল হতে দেখা যাচ্ছে যেখানে তিনি দাবি তুলেছেন এ দেশের নাম ইন্ডিয়া থেকে সরিয়ে দিয়ে ভারত করে দেওয়া হোক।

কারণ ইন্ডিয়া নামটি সেই ব্রিটিশ আমলে দেওয়া হয়েছিল যা ব্রিটিশদের দেওয়া স্লেভ নেম অর্থাৎ একদা শাসকদের করা ক্রীতদাসের নামকরণ এটা যাতে কোনো গৌরব নেই এমনটাই দাবি তার। তবে যেমনটা আমরা জানি বর্তমানে তিনি টুইটারে নেন, তবে তার এই টুইটটি ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং ভারতীয় সংস্করণ কু তে রয়েছে সেখানে এই নতুন টুইট তুলে ধরেছেন এই কন্ট্রোভার্সি কুইন’ কঙ্গনা। তার দাবি ভারতের উত্থান তখনই সম্ভব হবে যখন শিকড়ের সঙ্গে প্রাচীন আধ্যাত্মবাদ ও জ্ঞানের জগতে এটাই আমাদের মহান সভ্যতার আত্মা।

শুধু তাই নয় এর ফলে বিশ্ব আমাদের উঁচু নজরে তাকাবে এবং আমাদের দেশ বিশ্বনেতা হিসেবে এগিয়ে আসবে। না বলে সেটা যেন পশ্চিমী দুনিয়ার অক্ষম অনুকরণ না হয় বরং বেদ গীতা যোগাসনের শিকড়ের সঙ্গে জড়িয়ে থাকে আমরা কি এই দাসত্বের নাম ইন্ডিয়াকে বদলে ভারত করতে পারি না? তার দাবি ইন্দাস ভ্যালি তথা সিন্ধু উপত্যকা থেকে ইন্ডিয়ার নামকরণ হয়েছে। তার বক্তব্য জন্ম হিসাবে কারো নাম রাখা যায় না তবে এক্ষেত্রে ভারত যে নামটি রয়েছে সেটি একটি আলাদা অর্থ রয়েছে যেখানে ভা অর্থে ভাব, র অর্থে রাগ, আর ত অর্থে রয়েছে তাল।কঙ্গনা রানাওয়াত

যদিও কঙ্গনা রানাউতের এই টুইটের নীচে অনেকেই পাল্টা টুইট করতে দেখা যাচ্ছে যেখানে একজন নিজের মতামত দিয়ে লিখেছেন শুধু নাম পাল্টালে হবে না সে ক্ষেত্রে দেশের মানুষকে নিজেদের মনোভাব বদলাতে হবে আর যদি মনোভাব না বদলায় তো দেশ বদলাবে না। অন্য দিকে আরো এক ব্যাক্তি কটাক্ষ করে লেখেন সামান্য সংস্কৃত জ্ঞান ও পৌরাণিক ভারত সম্পর্কে ধারণা থাকলে কঙ্গনা বুঝতে পারতেন দুষ্মন্ত শকুন্তলার পুত্র “ভরত”এর নাম থেকেই দেশের নাম হয়েছে ভারত।