দেশনতুন খবরবিশেষ

চীনের অর্থনীতিতে আবারও বড়োসড়ো কোপ মোদি সরকারের, এবার চীন থেকে ভারতে সরে আসতে চাইছে অ্যাপেলের 8 টি কারখানা…

ভারত এবং চীনের মধ্যে লাদাখ সীমান্ত নিয়ে উত্তেজনা ক্রমশ বেড়েই চলছে, সীমান্ত নিয়ে এই ভাবে বিবাদ চলার ফলে অর্থনৈতিক দিক থেকে চীনকে শায়েস্তা করতে ভারত একের পর এক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে কখনো ডিজিটাল পদ্ধতিতে স্ট্রাইক আবার কখনো চীনের সাথে করা একাধিক চুক্তি বাতিল করে দেওয়া।তাছাড়া দেশজুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর পর থেকে চীন এখন একাধিক দেশের নজরে চলে এসেছে আর তারপর থেকেই চীন থেকে একাধিক বাণিজ্য সংস্থা তাদের ব্যবসা গোটানো শুরু করে দিয়েছে।

আর আবারো একবার মোদি সরকার এর ধাক্কায় কোমর ভাঙলো জিনপিংয়ের সরকারের, কারণ এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে চীন থেকে ভারতে আসতে চলেছে অ্যাপেলের আটটি কারখানা। আর এর ফলে যে চীন আবারো যে বাণিজ্য ক্ষেত্রে চীন বড়সড় ধাক্কা খেলো ভারতের কাছে তা বলাই বাহুল্য। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানান বিখ্যাত তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা অ্যাপেল তাদের 8 টি কারখানাকে চীন থেকে সরিয়ে ভারতের স্থানান্তর করতে চলেছে আগামীদিনে। তার পাশাপাশি তিনি আরো জানান যে ভবিষ্যতে ভারতই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার উৎপাদন হাব হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে।

এই মুহূর্তে ভারতের সাথে চীনের লাদাখ সীমান্ত বিবাদ নিয়ে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে বিশ্বের অন্যতম তাবড় তাবড় দেশগুলি যাদের মধ্যে রয়েছে আমেরিকা, গ্ৰেট ব্রিটেন, জাপান , অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশের নাম। যার ফলে এই মুহূর্তে ভারতের অবস্থান আন্তর্জাতিক মহলে অনেকটাই মজবুত হয়েছে। তবে এবার অ্যাপেল সংস্থা যে 8 টি কারখানা ভারতে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার ফলে নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে এটি বেজিংয়ের মুখে বড়সড় ধাক্কা। তাছাড়া এটি আরো একবার মোদি সরকার এর বড়সড় সাফল্য চীনকে বাজিমাত দেওয়ার ক্ষেত্রে।

এই দিন প্রবাসী ভারতীয়দের উদ্দেশ্যে একটি ভিডিও কনফারেন্স করেন রবিশঙ্কর প্রসাদ। যেখানে তিনি বলেন গোটা বিশ্বের উৎপাদন শিল্পের সঙ্গে যুক্ত সব পক্ষই বুঝতে পারছে, তাছাড়া চীনের বাইরে অন্য দেশে উৎপাদন শুরু করার প্রয়োজন রয়েছে চীন থেকে ভারতে আসছে অনেক কোম্পানি এক্ষেত্রে। তাছাড়া অ্যাপেল তাদের 8 টি সংস্থাকে ইতিমধ্যে চীন থেকে ভারতে স্থানান্তরিত করে ফেলেছে। তাছাড়া তিনি এদিন আরো জানান ভারত সরকার চীনকে সামরিক এবং কূটনৈতিকভাবে চাপে রাখার পাশাপাশি বাণিজ্যিক দিক থেকেও বড় ধাক্কা দিতে চাইছে বার বার যার দরুন, তৃতীয় দফার ডিজিটাল স্ট্রাইকে আবারো ব্যান করা হয়েছে ভারত থেকে 118 টি চীনা অ্যাপ্লিকেশন। অন্যদিকে অ্যাপেল এর পাশাপাশি স্যামসাং ও ভারতের মাটিতে কাজ শুরু করছে, এবং তারা আগামী দিনে ভারতে আরো ব্যবসা বাড়ানোর কথা ভাবছে একথাও জানান তিনি এই দিন।

Related Articles

Back to top button