দেশনতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

লকডাউনের মধ্যেই আবারো এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন মোদি সরকার,আগামী 1 জুন থেকে..

দেশের যে কোন প্রান্তে নিজের অধিকারের রেশন সামগ্রী পাওয়াটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আমরা এখন লকডাউন হওয়ার পর হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি। তবে বহুদিন আগে থেকেই দেশের যে কোন প্রান্তে নিজের পরিমাণ মতো রেশন সামগ্রী পাওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলে আসছিলেন যার দরুন তিনি ঘোষণা করেছিলেন “এক দেশ এক রেশন কার্ড” যেখানে দেশের যে কোন প্রান্তে থাকা মানুষেরা তাদের নিকটবর্তী রেশন দোকান থেকে তার প্রাপ্ত রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারবে।

যদিও তখন দেশের জনগন এর গুরুত্ব এতটা ভালোভাবে বোঝো নি তবে এবার লকডাউনের জেরে এর গুরুত্ব অনেকখানি বুঝতে পেরেছে সকলে। তার কারণ এই মুহূর্তে এমন বহু মানুষ রয়েছেন যারা করোনা ভাইরাসের কারণে এই লকডাউনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে ভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়েছেন, যার ফলে তারা তাদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী ঠিকমতো পাচ্ছেন না। তবে এই সময় যদি এক দেশ এক রেশন কার্ড শুরু হয়ে যেত তাহলে সে সব মানুষদেরকে তাদের রেশন সামগ্রী তুলতে এতটা কষ্ট করতে হত না।

তবে এবার সরকারের তরফ থেকে এই বিষয়টিকে লক্ষ্য রেখে তৃতীয় দফার লকডাউন চলাকালীন কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে শুরু হয়েছে রেশন ব্যবস্থাতে বড়োসড়ো পরিবর্তন আনার জন্য আর এই পরিবর্তন আসতে চলেছে আগামী 2020 এর পহেলা জুন থেকে।কারণ দেশের মোট 20টি রাজ্য ও সমস্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল নিয়ে এক দেশ এক রেশন ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে যার ফলে এই লকডাউনের জেরে বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়া মানুষ এবং রাজ্যের আদিবাসী যারা অন্য রাজ্যে আটকে পড়েছেন এবং আর্থিকভাবে দুর্বল তারা ন্যায্য দামে তাদের রেশন সামগ্রী পেয়ে যাবেন।

আর এই রেশন সামগ্রী সে সব মানুষেরা যাতে  ন্যায্য দামে পায় তার দরুন কেন্দ্রীয় সরকারকে এ বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। আর ইতিমধ্যে “এক দেশ এক রেশন কার্ড”- ব্যবস্থা কার্যকারী করার জন্য দেশের 17 টি  রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের কাজ সমাপ্ত হয়ে গেছে বলে জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসওয়ান। আর এই কাজ কে দ্রুতগতিতে করতে মিজোরাম,নাগাল্যান্ড, ওড়িষ্যা তে কাজ চলছে।আর এই প্রকল্প একবার শুরু হয়ে যাওয়ার পর দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা দেশের জনগণ এক দেশ এক রেশন ব্যবস্থার সুবিধা পেয়ে যাবেন। আর এক্ষেত্রে যেসকল রাজ্য এই প্রকল্পের আওতায় যুক্ত হবেন সেই সকল রাজ্যের জনগণ এই প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে যাবেন বলে জানতে পারা গেছে।এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান জানান দেশের যে কোন জায়গাতে নিজের প্রাপ্য রেশন পাওয়ার জন্য আগামী পয়লা জুন থেকে দেশের প্রতিটি রাজ্যে শুরু করা হচ্ছে এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থা।

তবে এক দেশ এক রেশন ব্যবস্থার গুরুত্ব কী?
এর গুরুত্বের কথা বলতে গিয়ে কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রী রামবিলাস পাসওয়ান জানান এর ফলে এক রাজ্য থেকে যেসব শ্রমিকরা অন্য রাজ্যে কাজ করতে যান তারা অনেক উপকৃত হবেন। কারণ এক্ষেত্রে ঠিকানা বদলালেও রেশন কার্ড বদলানোর কোন প্রয়োজন পড়বে না যার ফলে সেসব শ্রমিকেরা তাদের ভর্তুকির খাদ্যশস্য সহজেই দেশের যেকোনো রেশন ডিলারের কাছ থেকে সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। শুধু তাই নয় এর ফলে একজনের কাছে একাধিক রেশন কার্ড রাখার প্রবণতাও বন্ধ হবে। তাছাড়া এটি একবার শুরু হয়ে গেলে রেশন দুর্নীতির যে সম্ভাবনা থাকে সেটি আরও কমবে, এছাড়া দেশজুড়ে রেশন কার্ডের রিয়েল টাইম অনলাইন ডাটাবেস তৈরি করা হবে।

Related Articles

Back to top button