52 হাজার কোটি টাকা সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দিতে চলেছেন মোদি সরকার, যার ফলে লাভবান হতে চলেছে..

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণকে আটকাতে দীর্ঘমেয়াদি লকডাউন এর ফলে ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা তলানিতে ঠেকেছে। আর এর প্রভাব যাতে বিস্তার না করে তার জন্য করোনা বাজেট প্রকাশ করল মোদি সরকার। দেশের অর্থনীতিকে বাঁচানোর জন্য 15 দফার বাজেট পেশ করল কেন্দ্রীয় অর্থ দফতর। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কুড়ি লক্ষ কোটি টাকার বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করেন। এই বিশেষ প্যাকেজ এ কী কী সুবিধা থাকছে তা বুধবার জানিয়ে দেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

কোন খাতে কত টাকা দেওয়া হবে সেই সম্পর্কে ধাপে ধাপে জানিয়ে দেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এ ঘোষণার পরেই সাংবাদিক বৈঠক ডাকা হয়। এই বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন অর্থ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর।কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন যে 15 টি পদক্ষেপ এর ঘোষণা করেছিলেন তার মধ্যে 6 টি পদক্ষেপ ছিল ক্ষুদ্র, মাঝারি এবং অতি ক্ষুদ্র দের জন্য। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এই বিশেষ প্যাকেজ এ কী কী রয়েছে তা নিচে আলোচনা করা হলো –

1. MSMY এর জন্য বিনা গ্যারান্টি ঋণ দেওয়া ।

2. 200 কোটি টাকা পর্যন্ত সরকারি টেন্ডার কে গ্লোবাল টেন্ডার হিসেবে ঘোষণা না করা। আর এর ফলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প যে কোনো টেন্ডারে বিনা বাধায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। আর ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প যখন এই সমস্ত টেন্ডারে অংশগ্রহণ করবে তখন তাদের ক্ষমতা আগের তুলনায় বেড়ে যাবে। এছাড়াও তারা এর মধ্য দিয়ে শিল্প বাড়ানোর সুযোগ পেয়ে থাকবে।

3. মাইক্রো ইন্ডারি ক্ষেত্রে আগে 25 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ ছিল কিন্তু বর্তমানে সেটাকে বাড়িয়ে এক কোটি টাকা করা হয়েছে এই বিশেষ বাজেটে।

4. ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে 3 লক্ষ কোটি টাকার বিশেষ প্যাকেজ দেওয়া হয়েছে।

5. পঞ্চাশ হাজার কোটি টাকার একটি প্যাকেজ তৈরি করা হয়েছে এবং এই প্যাকেজটি মূলত সক্ষম ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য রাখা হয়েছে।

6. দুর্বল এবং ঋণগ্রস্ত সংস্থাদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের এই বাজেটে 20 হাজার কোটি টাকার নগদ সাহায্য করার জন্য বলা হয়েছে।

7. আপনার বিনিয়োগ করা মোট মূলধনের পরিমাণ এর সঙ্গে বছরে যে টার্নওভার হয়েছে তা যোগ করা হবে।

8. যদি কোন সংস্থার বিনিয়োগ এক কোটি টাকা হয় এবং টার্নওভার 500 কোটি টাকা হয় তাহলে সেই সংস্থা কে মাইক্রো ইন্ডারি হিসেবে ধরা।

9. ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্পের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার থেকে তিন লক্ষ কোটি টাকা ঋণের ব্যবস্থা করা হবে।
আর এক্ষেত্রে দিতে হবে না এক বছরের জন্য কোনো সুদ। যার ফলে উপকৃত হবে দেশের 45 লক্ষ কোটি শিল্প ইউনিট।

10. চার বছরের জন্য এই ঋণ দেওয়া হবে আর এই ঋণ প্রথম এক বছর পরিশোধ করতে হবে না। এমন কী এর জন্য কোন গ্যারান্টি ও লাগবেনা। এরপর ঋণের ওপর এক বছরের মরিটরিয়াম দেওয়া হবেও বলে জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের বিশেষ প্যাকেজে।