বিয়ের বয়স আর 18 নয়, এবার বাড়তে পারে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স বিশেষ টাস্কফোর্স গঠনের ইঙ্গিত অর্থমন্ত্রীর…

মেয়েদের বিয়ের জন্য যে বয়স সীমা রয়েছে (18 বছর) সেটি পরিবর্তন করতে পারে সরকার আর একথা শনিবার দিন বাজেট পেশ করতে গিয়ে বক্তৃতাই ইঙ্গিত দিয়ে দিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। এইদিন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ জানান যে মেয়েদের বিয়ের জন্য যে নূন্যতম বয়স টি নির্ধারিত রয়েছে সেটি পর্যালোচনা করার সময় এসে গেছে। আর এরজন্য সরকারের তরফ থেকে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হবে, নারী ও শিশু কল্যাণ মহল থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স পরিবর্তন করার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ভাবছে সরকার।

বর্তমানে এখন বাবা-মায়ের আইনসম্মত অনুমতি থাকলে 18 বছর বয়সে বিয়ে করতে পারেন মেয়েরা। তবে এখন সরকারের তরফ থেকে এই বিষয়ে ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে যদি এক্ষেত্রে মেয়েদের বিয়ে করার যে বয়স রয়েছে সেটি যদি খানিকটা বাড়িয়ে দেওয়া যায়। আর এরই মধ্য দিয়ে সরকারের  বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও সাফল্যকে তুলে ধরা হবে সকলের মাঝে। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ এর দাবি রয়েছে সরকারি প্রকল্প চালু করার পর মেয়েদের মধ্যে স্কুল ছাড়ানোর যে সংখ্যাটি রয়েছে তা উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে।

আর আগের তুলনায় এখন প্রাথমিক শিক্ষা হোক কিংবা উচ্চশিক্ষা হোক দুই স্তরেই মেয়েদের শিক্ষার হার আগের তুলনায় অনেকগুণ বেশি বেড়েছে।তাই এখন কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে মনে করা হচ্ছে যদি এক্ষেত্রে মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার যে ন্যূনতম সময় খান রয়েছে সেটি যদি আরো বাড়িয়ে দেওয়া যায় তাহলে যেসব মেয়েরা আরো বেশি শিখতে আগ্রহী অর্থাৎ উচ্চ শিক্ষায় আগ্রহী রয়েছে তাদের আগ্রহ আরো অনেকখানি বাড়বে।আর এরই সাথে কম বয়সে মা হওয়ার ক্ষেত্রে যে মায়ের স্বাস্থ্যের ঝুঁকি খানি রয়েছে সেটি অনেকটা কমে যাবে এর ফলে।

তাই এই দিন অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন মেয়েদের বিয়ের জন্য যে নূন্যতম বয়স খানি রয়েছে সেটি চিন্তা-ভাবনা করার জন্য স্পেশাল টাস্ক ফোর্স গঠন করা হবে।আর একই সাথে এই দিন বাজেটের ঘোষণা করার সাথে সাথেই নারী ও শিশু শিক্ষা কল্যাণ দপ্তর এর জন্য বরাদ্দের যে পরিমাণ রয়েছে তা আরো 14 শতাংশ  বাড়ানো হয়েছে।তবে এই বিষয়ে নিন্দুকেরা বাদ যায়নি অর্থমন্ত্রীকে নিশানা করতে তারা বলেন অর্থমন্ত্রীর মুখে মোদির মস্তিষ্কপ্রসূত প্রকল্পের সুখেতে লাভ করল কার্যক্ষেত্রে এতে বরাদ্দ তেমন বাড়েনি (বলে রাখি বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও প্রকল্পের পরিমাণ রয়েছে 220 কোটি টাকা)।

তার সাথে তারা আরো বলেন এই বিষয়ে অর্থমন্ত্রী যে মেয়েদের বিয়ের বয়স নিয়ে চিন্তাভাবনা করছেন তা সংঘ পরিবারে আদৌ পছন্দ হবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।

Related Articles

Close