ভারতীয় গ্রাহকদের তালিকা দিল সুইস ব্যাংক, খুঁজে পাওয়া গেলো বিপুল পরিমাণে কালোধন, তালিকা

ব্যাল্ক মানি অর্থাৎ কালোধন যা বিভিন্ন লোকজন তাদের আয় এর পরিমাণ লুকিয়ে কর ফাঁকি দেওয়ার জন্য ব্যবহার করে। তারই বিরুদ্ধে কয়েক বছর ধরে চলে আসা যুদ্ধে বড়ো পরিমাণে সফলতা পেয়েছে আজ ভারত। ভারতের মজুত কালোধন বিষয়ে সুইজারল্যান্ড সরকার এর সঙ্গে করা এক চুক্তি এর মাধ্যমে এই কর্মসূচির সূচনার আদান-প্রদান অনুযায়ী সুইস সরকার ভারতীয় নাগরিকদের সুইস ব্যাংক কর্পোরেশন এর মধ্যে মজুত অ্যাকাউন্ট এর তৃতীয় তালিকা ভারত সরকারের হাতে তুলে দিয়েছে সেই সংস্থা, সুইজার ল্যান্ড এর সরকার জানিয়েছে যে, মোট ৯৬টি দেশের সাথে ৩৩ লক্ষ গ্রাহকদের এক তালিকা সেই সমস্ত দেশের সরকারের এর মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে।

ভারতও সেই ৯৬ টি দেশের তালিকা এর মধ্যে শামিল রয়েছে, যাদের সাথে সুইজারল্যান্ড সরকার এই চলতি বছর বিশ্ব মানদণ্ডের কাঠামোর তৈরির জন্য প্রত্যেক দেশের আর্থিক হিসাবের তথ্য প্রদান করে। এর আগে গত অক্টোবর ২০২০ সালে সুইস সরকার ৮৬টি দেশের সাথে ৩১ লক্ষ ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য শেয়ার করেছিল। আর গত ২০১৯ সালে সেপ্টেম্বর মাসে সুইজারল্যান্ড সরকার ভারত দেশ এর সাথে আরো কয়েক ৭৫ টি দেশের সাথে এই তথ্য ভাগ করে নিয়েছিল।

ফেডারেল কর প্রশাসন (FTA) সংস্থা এই বিষয়ে এই ১১ অক্টোবর ২০২১, সোমবার দিন জানায়, এই বছরে আরও দশটি দেশ এর সাথে কিছু অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য আদান-প্রদান করা হয়েছে। ওই সকল দশটি দেশের নাম হল অ্যান্টিগুয়া, আজারবাইজান, ডোমেনিকা, ঘানা, লেবানন, মাকাউ, পাকিস্তান, কাতার, সমোয়া এবং ভানাতু।

Advertisements

কিন্তু এখনও ফেডারেল কর প্রশাসন (FTA) সব ৯৬ দেশ এর নাম প্রকাশ্যে আনেনি। কিছু সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন যে, ভারত পরপর তৃতীয় বছর এর জন্য সুইস ব্যাংকের তরফ থেকে কিছু সূচনা পেয়েছে ও সে সকল তথ্য ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শেয়ার করে সেই অ্যাকাউন্ট গুলোর সম্পর্কে সম্পূর্ণ বিবরণ সুইস আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বিপুল সংখ্যার কিছু ব্যক্তি এর সঙ্গে ও কিছু কোম্পানির অ্যাকাউন্টের সাথে সম্পর্ক আছে।

Advertisements

আবার অন্যদিকে, ২৬টি এমন দেশ ও আছে যারা সুইজার ল্যান্ড সরকারের সাথে নিজেদের কিছু আর্থিক তথ্য ভাগ করেছে, কিন্তু তাও সুইস ব্যাংক তাঁদের কোনও প্রকারের একাউন্ট সম্পর্কে কোনো রকমের তথ্য প্রদান করেনি । শুনতে পাওয়া যাচ্ছে যে, ডেটা সিকিউরিটি প্রদান করার জন্য সুইজারল্যান্ড সরকার ১৪ টি দেশের সাথে তাদের আর্থিক তথ্য ভাগ করবে না বলে জানিয়েছে রেখেছে।