ভারতের অর্থনীতিতে কয়েকশো কোটি টাকার ক্ষতি, করানো ভাইরাস আতঙ্কের জেরে বাজারে কমছে মুরগীর বিক্রি…

যেসব মানুষদের চিকেন খেতে ভালোবাসেন তাদের জন্য আজকের এই খবরটি খারাপ হতে পারে কারণ এবার অনেক জায়গায় দেশের জনগণ মুরগি নিষিদ্ধ করলো। আর এরই সাথে বেরিয়ে এল ভয়াবহ তথ্য বর্তমানে যেহেতু প্রত্যেক দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা প্রত্যেকদিন মৃত্যুর খবর আসছে। এখন বিশ্বজুড়ে একটা আতঙ্ক যার নাম “করোনা ভাইরাস”।
এই ভাইরাসের জেরে এবার অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রভাব পড়তে শুরু হয়ে গেছে।

কারণ সদ্য কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় রটে গিয়েছিল যে বয়লার মুরগি থেকে এই ভাইরাস ছড়াতে পারে তাই ভারতে মুরগির মাংসের বিক্রি হুর হুর করে কমছে, আবার অনেক জায়গায় এর জেরে মুরগি মাংসের দাম অর্ধেক পর্যন্ত হয়ে গেছে।যার ফলে বর্তমানে এইভাবে মুরগি মাংস বিক্রি কমে যাওয়ার ফলে ছোট ছোট দোকানদার রা সমস্যায় পড়েছেন। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে গত তিন সপ্তাহে ভারতের বাজারে তেরোশো কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

তবে শুধু তাই নয় মহারাষ্ট্রে তো এতটা পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে যে যার ফলে ব্যবসায়ীরা পুলিশকে এর উপর উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে বলছেন।কিছুদিন আগে হোয়াটসঅ্যাপের মুরগি নিয়ে কোন ভাইরাসের ঘটনা ছড়িয়ে পড়ে আর এই ভাবে বাজারে মুরগি বিক্রির হার কমতে শুরু করে। যার জেরে এখন বর্তমানে বিভিন্ন জায়গায় প্রচার চালিয়ে বলা হচ্ছে যে মুরগিতে কোন করানো ভাইরাস নেই।আর এই প্রচারের মাধ্যমে কিছুটা হলেও মুরগি বিক্রিকে বাড়ানো সম্ভব হয়েছে তবে স্বাভাবিক পরিস্থিতি পর্যন্ত আসতে সময় লাগবে।

শুধু এর প্রভাব মুরগির এর উপরই নয় এর পরোক্ষ প্রভাব পড়তে শুরু করেছে সোয়াবিন ও ভুট্টার বাজারেও কারণ এইসব খাবার মুরগি কে খাওয়ানো হয় তবে যেভাবে ক্ষতির সমস্যায় পড়ছে পোল্টির মালিকেরা তার জেরেই এই খাবারের পরিমাণটাও কমিয়ে দিয়েছে অনেকখানি তারা।যদিও এর আগেই International Monetary Fund জানিয়ে দিয়েছিল করানো ভাইরাসে জেরে বিশ্বের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা অনেকখানি পিছিয়ে পড়বে।তবে আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার এই প্রতিকূলতার মাঝেও একটু হলো আসার খবর দিয়েছেন তারা জানিয়েছেন অর্থনৈতিক বাজার ও তার পাশাপাশি পরিস্থিতিরও বদল আসবে।