বছরের প্রথম দিকে এক বড় সাফল্য পেল ভারতীয় সেনাবাহিনী। কাশ্মীরে “সার্জিক্যাল স্ট্রাইক” চালাতে গিয়ে মুখ পুড়লো পাক সেনাবাহিনীর।

‘সার্জিকাল স্ট্রাইক’ কথাটির সঙ্গে আমরা সবাই পরিচিত। আর সীমান্তরেখা পেরিয়ে সার্জিকাল স্ট্রাইক করতে এসে মুখ পুড়িয়ে ফিরল পাকিস্তানের সেনা। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান কমর জাভেদ বাজওয়া পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে নববর্ষের গিফ্ট দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সীমান্তে ভারতীয় সেনাদের পাল্টা আক্রমণের ফলে পাকিস্তানের সেনা মুখ ফিরিয়ে পালিয়ে যায়। ইমরান খানকে উপহার দেওয়া তো দূরের কথা উল্টে সেনা প্রধান মুখ লুকিয়ে ফিরলো। এমনকি সেই দিন ইমরান খান ও লজ্জায় সকাল থেকে কিছু বলেননি। শনিবার ভোরে জম্মু ও কাশ্মীর সীমান্ত লাগোয়া একটি জঙ্গলে লুকিয়ে ঢুকে পড়ে পাক স্পেশাল সার্ভিস গ্রুপ এর বিশেষ দল ‘ব্যাট’ সীমান্তরেখা পেরিয়ে প্রবেশের চেষ্টা করে।

উল্টে স্যাটেলাইট ইমেজ থেকে ভারত সেনারা তা জানতে পেরে যায়। ফলে পাল্টা জবাব দেই ভারতও। মুখোমুখি যুদ্ধতে দুই পাক সেনার মৃত্যু হয়। বাকি পাকসেনারা ভয়ে পালিয়ে যায়। তবে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে এসেছিলো পাকিস্তান। পাকিস্তান যে সেনাদলকে পাঠিয়ে ছিলেন তারা সীমান্ত পেরিয়ে আক্রমণ করার জন্য বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত। কিন্তু শনিবারের এই ঘটনা ঘটার পর সেনাপ্রধান বাজওয়ার চিন্তা হয়ে গিয়েছে। তাদের প্রশিক্ষণ এ কথাটা ভুল ছিল তা খতিয়ে দেখছে বাজওয়া। পাকিস্তান ‘ব্যাটকে’ ভারতীয় সেনাদের এবং বি এস এফ দের পোশাক পরিয়ে পাঠিয়েছিলেন পাক সেনাপ্রধান। শুধু এটাই নয় বেশ কিছু জনগোষ্ঠীর সদস্যকেও তারা পাঠিয়েছিলেন। তাদের পরিকল্পনা ছিল যে যদি ধরা পড়ে যায় তাহলে বলে দেওয়া হবে এর মধ্যে পাক সরকারের কোন হাত নেই। কিন্তু পাক সেনাপ্রধানের এ সমস্ত পরিকল্পনা ধুলোয় মিশিয়ে ভয়ে পালিয়ে গেছে পাকিস্তানের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সেনা দল ‘ব্যাট’।

রবিবার বিকেলে ভারতীয় সেনা ছাউনিতে টার্গেট করে পাকিস্তান সেনা। ফলে সঙ্গে সঙ্গেই সতর্ক হয়ে যায় ভারতীয় সেনাবাহিনী। পাকিস্তানের জবাবে উল্টো জবাব দেয় ভারত। তার কিছুক্ষণ পরেই সেনার রেডারে ধরা পড়ে যে ভারতীয় সীমান্ত পরিয়ে বেশ কয়েকজন ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে হাই অ্যালার্ট জারি করে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে। পাকসেনারা সীমান্ত পেরোবার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতীয় সেনারা টার্গেট করে গুলিবর্ষণ করে। ভারতীয় সেনাদের জোর তর জবাবে মুখে সমস্যায় পড়ে যায় পাক সেনারা। ঠিক সেই সময়ই ভারতীয় সেনাদের গুলিতে দুই পাক সেনার মৃত্যু হয়।