দেশনতুন খবরবিশেষ

ইলেকট্রিক বিল, সোনা কেনা, স্বাস্থ্য বীমা সহ আরো একাধিক বিষয়ে নজরদারি রাখতে চলেছে আয়কর দপ্তর..

কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ অনেক সময় উঠে আসছে। আর তাই যাতে এবার থেকে আর কর না ফাঁকি দিতে পারে সেই দিকে বিশেষভাবে নজর রাখছে আয়কর দপ্তর। আয়করদাতা দের উপর বিভিন্ন দিক থেকে নজর রাখার জন্য বলা হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে। জানা গিয়েছে এবার থেকে ইলেকট্রিক বিল, সোনা কেনা, হোটেল খরচ, স্বাস্থ্য বীমা সহ আরো সমস্ত বিষয়গুলি দিকে নজর রাখবে আয়কর দপ্তর।

 

সম্প্রতি 2020-21 সালের বাজেট পেশ করার সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন জানিয়েছেন যে, আর কয়েক মাসের মধ্যেই করদাতাদের সনদ অর্থাৎ ‘টেক্সপেয়ারস চার্টার’ ঘোষণা করা হবে। সাধারণ নাগরিকদের আয়কর দপ্তরের তরফ থেকে যাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরিষেবা দিতে বাধ্য হয় তার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই অনুসারে ‘ স্বচ্ছ কর ব্যবস্থা-সততাকে সম্মান’ নামের কর আদায়ের পদ্ধতির ওপর বড়োসড়ো সংস্করনের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে তিনি জানান যে, কর দেওয়ার নিয়ম কানুন যাতে সহজ সরল হয় তার জন্য সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। তার গ্রাহকদের স্পষ্ট ভাবে বোঝা গেছে যে করোনা মহামারীর ফলে অর্থনৈতিকে চাঙ্গা করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন তিনি।  এর পাশাপাশি ওই দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘টেক্সপেয়ারস চার্টার’, ‘ফেসলেস আপিল’ এবং ‘ফেসলেস অ্যাসেসমেন্ট’ এর কথা ঘোষণা করেন। বর্তমানে সারা দেশ জুড়ে যে কঠিন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তাতে কর বাবদ আয় অনেকটা কমে গিয়েছে।

 

তাই আয়করের ফাঁকি রুখতে বেশ কয়েকটি নয়া পদক্ষেপ নিল অর্থমন্ত্রক। আর এর ফলে মোট 11 টি ক্ষেত্রে সমস্ত নাগরিকরা কী পরিমান খরচ করছেন সেই বিষয়ে নজর রাখতে বলা হয়েছে আয়কর দপ্তর কে। এই 11 টি ক্ষেত্র কী কী সেই বিষয়ে নিচে আলোচনা করা হলো –
1. বছরে বিদ্যুৎ বিল বাবদ খরচ যদি এক লাখ টাকার উপরে হয়।
2. হোটেলের বিল যদি 20 হাজার টাকার বেশি হয়।
3. বছরে শিক্ষাক্ষেত্রে ফি বা ডোনেশন ফি হিসেবে এক লাখ টাকার বেশি হলে।
4. বিদেশে বা দেশের মধ্যে ভ্রমণে বিমানে বিজনেস ক্লাসে সফর করলে।
5. বছরে সম্পত্তি কর হিসেবে যদি 20 হাজার টাকার বেশি দিতে হয়।

6. 1 লাখ টাকারও বেশি মূল্যের গয়না, ছবি এবং মার্বেল কিনলে।
7. শেয়ারে লেনদেন করা বা ডিমাট অ্যাকাউন্টে লেনদেন করা বা ব্যাংকের লকারের ওপর নজর থাকছে আয়কর বিভাগের।
8. কোনো ব্যাক্তি যদি 20 হাজার টাকারও বেশি স্বাস্থ্য বীমা করা থাকে।
9. 50000 টাকার বেশি যদি কারোর জীবন বীমার প্রিমিয়াম নেওয়া থাকে।
10. ব্যাংকের কোন কারেন্ট অ্যাকাউন্টে 50 লাখ টাকা বা তার বেশি জমা দেওয়া।
11. আর ব্যাংকের সাধারণ অ্যাকাউন্টে 25 লাখ বা তার বেশি টাকা জমা পড়া।

Related Articles

Back to top button