ভারতের পাঁচ সেরা খেলোয়াড়, যারা ক্রিকেট খেলার জন্য জীবনে অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন

বর্তমানে ভারত ক্রিকেট খেলায় বিশ্বে চতুর্থ স্থানে রয়েছে।তবে এর জন্য ভারতীয় ক্রিকেটারদের অবদান কম নয়।এই ক্রিকেটারদের কঠোর পরিশ্রমই ভারতকে এই শীর্ষে নিয়ে গিয়েছে।তারমধ্যে কিছু খেলোয়াড় আছেন যারা ক্রিকেট খেলার জন্য নিজের জীবনের অনেক আত্মত্যাগ করেছেন। পুরো জীবনকেই উৎসর্গ করে দিয়েছেন এই ক্রিকেট খেলার জন্য।এমনকি তারা পরিবারের ছোট-বড় আনন্দ এবং দুঃখের সময় ও পরিবারের পাশে থাকতে পারেননি।এই আত্মত্যাগের জন্যই আজ তারা ক্রিকেট বিশ্বে শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে সম্মানিত হন। নিম্নে এই 5 খেলোয়াড়ের বিবরণ দেওয়া হল।

১) শচীন টেন্ডুলকার :-

ক্রিকেট খেলোয়াড়দের কথা বলতেই যার কথা প্রথমে মনে আসে তিনি আর কেউ নন ‘ক্রিকেট ঈশ্বর’ শচীন তেন্ডুলকর। যিনি ২৪ বছর টানা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।যার ফলে তাকে বেশিরভাগই সময়ই কাটাতে হতো পরিবার ছাড়া। ১৯৯৯সালে ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপের সময় যখন তার বাবা রমেশ টেন্ডুলকার মারা যান,তিনি সেখানেই খেলছিলেন।পরের ম্যাচে কেনিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলে সেঞ্চুরি করে আবেগপ্রবণ মুহূর্তকে তার বাবাকে উৎসর্গ করেছিলেন।

২) বিরাট কোহলি :-

বর্তমান ভারতের ক্রিকেটেরে অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি শুধু ভারতেরই বিখ্যাত খেলোয়াড় নন,এই আধুনিক যুগের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন। তবে তার জন্য তাকে জীবনে অনেক কঠিন পথ পার করতে হয়েছে। ২০০৮সালে বিরাট কোহলি দিল্লির হয়ে একটি রঞ্জি ম্যাচ খেলছিলেন। তখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার স্থান হয়নি।সেই সময় তার বাবার মৃত্যুর খবর এলে তিনি অত্যন্ত ভেঙে পড়েন,তবুও তিনি খেলা না ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন।সেই পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে ৯০রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দিল্লিকে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা করেন এবং খেলা শেষ হওয়ার পরেই বাবার শেষ কাজে অংশ নেন।

৩) মহেন্দ্র সিং ধোনি :-

যুক্তিযুক্তভাবে, ভারতের ক্রিকেটের সম্পদ হিসেবে মহেন্দ্র সিং ধোনি অন্যতম।তার খেলার নীতি ক্রিকেট খেলাকে এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে। তার কঠোর পরিশ্রমের কথা কম বেশি সকলেই জানি। ধোনির মন্ত্র ছিল খেলাকে গভীরে নিয়ে যাওয়া।২০১১ Cricket World Cup তার অধিনায়কত্বেই ভারতে এসেছিল।২০১৫সালে ভারতীয় দল যখন অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল সে সময় ধোনির কন্যার জন্ম হয়।তবুও এক মুহূর্তের জন্য সে খেলা ছেড়ে মেয়েকে দেখতে আসেনি।দেশকে চ্যাম্পিয়ন করতে ধোনি নিজেকে যতটা সম্ভব উৎসর্গ করে দিয়েছিল।

৪) মহম্মদ শামি :-

ভারতীয় ফাস্ট বোলারদের মধ্যে অন্যতম মহম্মদ শামি। বর্তমান সময়ে তিনি ভারতীয় দলে অন্যতম সেরা বিশ্বাসযোগ্য খেলোয়ার হয়ে উঠেছেন।২০১৬ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে খেলা চলাকালীন তার মেয়ের শারীরিক অবস্থা খুব গুরুতর হয়েছিল এবং সে আইসিউতে ভর্তি হয়েছিল।তবুও তিনি দল ছেড়ে চলে আসে নি। এমন কঠিন অবস্থার মধ্যে শামি নিজের দেশের প্রতি জাতীয় কর্তব্য পালন করে গেছেন।

৫) রবিচন্দ্রন আশ্বিন :-

গত ১০বছর ধরে ভারতীয় দলে টেস্ট ক্রিকেটে বড় অবদান রেখেছেন রবীচন্দ্র আশ্বিন তার একবার দলের প্রতি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেছিলেন।২০১৫দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ চলাকালীন,চেন্নাই ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়ে এর ফলে সেখানকার প্রচুর মানুষ সেখানে মারা যায়। আশ্বিন টানা ২৪ ঘন্টা তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেনি।তবুও তিনি দলের হয়ে খেলা কেই যথা উপযুক্ত বলে মনে করেছিলেন।