২৭ বছরে একটিও নেননি ছুটি, Burger King-র তরফে স্বীকৃতিতে মিলল দেড় কোটি টাকা

কাজ তো অনেকেই করেন, কিন্তু কাজের মত কাজ কজন করেন। পারিবারিক সমস্ত সমস্যা সরিয়ে রেখে অথবা শারীরিক সমস্ত সমস্যা সরিয়ে রেখে এক মনে যিনি কাজ করে যেতে পারেন তিনি হলেন আসল কর্মজীবী। আজ এমন একজন অসাধারণ মানুষের কথা আপনাকে বলব। মানুষটি হলো বার্গার কিং এর কর্মচারী কেভিন ফোর্ড। ২৭ বছরের কর্মজীবনে নাকি এক দিনও ছুটি না নি তিনি। এমনকি কোন উইক অফ নেন নি অর্থাৎ শনি রবিবার সমানে কাজ করে গেছেন তিনি।

এমন একজন বিরল কর্মীকে পেয়ে বেজায় খুশি কোম্পানি। তবে কোম্পানি তরফ থেকে সেই ভাবে কখনো স্বীকৃতি পায় নিয়ে কেভিন। খুব বেশি হলে কোন সিনেমা টিকিট অথবা চকলেট এবং স্টারবাকস সিপার পেয়েছেন তিনি। এছাড়া আর কখনো কোনো আলাদা সাম্মানিক পাননি তিনি। যদিও এই নিয়ে কখনোই মাথা ব্যথা ছিল না ওই কর্মচারীর।

তবে কেভিনের মেয়ে সেরিনা এবার বাবার জন্য তুলে ধরলেন সব থেকে বড় চমক। কেবি নিজেও কোনদিন ভাবতে পারেননি তার মেয়ে কোনদিন এত বড় চমক দিতে পারবে তার জন্য। এখন প্রশ্ন হচ্ছে কি করেছে সেরিনা? আসলেই বাবার এই কঠোর পরিশ্রমের স্বীকৃতি সেনা তুলে ধরেছেন নেট দুনিয়ায়।

ক্রাউড ফান্ডিং ওয়েবসাইডে গো ফাউন্ড মি, অপশনে গিয়ে বাবার লড়াইয়ে গল্প তুলে ধরেছেন সকলের সামনে। সেরিনা জানিয়েছিলেন, তাদের বড় করার জন্য এই অসাধ্য সাধন করেছেন তার বাবা। এই অসাধারণ একটি লড়াইয়ের গল্প শুনে স্বাভাবিকভাবে আপ্লুত হয়েছেন নেট দুনিয়ার মানুষরা। জনগণ শুধুমাত্র কেভিনকে সমর্থন করেছেন তা নয়, দুহাত দিয়ে উজার করে দিয়েছেন টাকা।

ইতি মধ্যেই ১ কোটি ১৭ লক্ষ টাকার অনুদান উঠে এসেছে ওই কর্মচারীর জন্য, যা সেরিনা নিজেও ভাবতে পারেনি। জানা গেছে, কমেডিয়ান এবং অভিনেতা ডেভিড স্পিড সবার আগে দান করেছেন ৫০০০ ডলার। বহু মানুষের বক্তব্য অনুযায়ী ওই কোম্পানির আরো বেশি স্বীকৃতি দেওয়া উচিত কেভিনকে।