ডাক্তার তো নয় যেন জাদুগর! বিনা ওষুধেই সুগার কিডনি রোগ সহজেই করেন নিরাময়

ভারতে বহু দিন ধরেই আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার প্রচলন রয়েছে। আজ থেকে কোটি কোটি বছর আগেই মুনি-ঋষিরা এই চিকিৎসার মাধ্যমে মানুষকে অসুস্থ করে তুলতেন। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা বহু রোগ থেকে মুক্তি দিতে পারে মানুষকে। পুরনো পদ্ধতি এবং সঠিক খাওয়া-দাওয়ার মাধ্যমে অনেক রোগ নিরাময় করা যায়। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার ভালো দিক আরো একবার উঠে এসেছে বিজ্ঞান গবেষণার মাধ্যমে।

ডক্টর বিশ্বরূপ রায় চৌধুরী এমনই একজন ব্যক্তি যিনি আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার গুনাগুন সম্পর্কে সকলকে অবগত করেছেন। সুশৃংখল জীবনযাত্রা এবং সুষম খাদ্য আহার করলে মানুষ বহু দিন বেঁচে থাকতে পারেন বলে তিনি মনে করেন। শুধু তাই নয়, এর মাধ্যমে ডায়াবেটিস, বিপি, হূদরোগ, কিডনি রোগ সহ আরো অনেক মারাত্মক রোগকে মূল থেকে নির্মূল করা যায়।

বর্তমান সময়ের চিকিৎসা বিদ্যার দ্বারা গুরুতর রোগে আক্রান্ত কোনো ব্যাক্তি ওষুধের সাহায্যে বহুদিন বেঁচে থাকতে পারেন। কিন্তু ডক্টর বিশ্বরূপ রায় চৌধুরী মনে করেন ব্রিটিশ শাসন চলাকালীন ভারতবর্ষের যেমন আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার প্রচলন ছিল সেই জায়গায় আমাদের আরো একবার ফিরে যেতে হবে। রোগের প্রতিকার খুঁজে বের করে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে মূল থেকে নির্মূল করতে হবে।

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা যদি কোন মানুষ রপ্ত করতে পারেন তিনি শুধুমাত্র নিজেকে নয় নিজের আশেপাশে সমস্ত মানুষকে সুস্থ রাখতে পারেন। বিশ্বরূপ রায় চৌধুরী ভারতবর্ষের পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা করে ডায়াবেটিস নিয়ে স্ব – অধ্যয়ন করেছেন। চিনি আন্তর্জাতিক ডায়াবেটিস ফেডারেশন থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেছেন এবং বর্তমানে মানুষকে সুস্থ করে তোলার জন্য সেই কৌশল অবলম্বন করেন।

ডক্টর রায়চৌধুরী মনে করেন, পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তি ব্যক্তির শরীরে সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলে তাই এই মাধ্যাকর্ষণ শক্তির যদি সঠিক ব্যবহার করা যায় তাহলে অনেক গুরুত্ব রোগ সংশোধন করে ফেলা যায়। তিনি বিশেষ ডায়েট ফলো করে বহু মানুষকে ঔষধ ছাড়া সুস্থ করে তুলেছেন। অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ আয়ুর্বেদ, সরিতা বিহারে ডাক্তারবাবুর ডায়েটের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করা হয়েছে এবং এই ট্রায়ালে জানা গেছে ডাক্তারবাবুর ফলো করা ডায়েট যদি মেনে চলা যায় তাহলে কিডনি ডায়াবেটিস ও রক্তচাপের মতো মারাত্মক সমস্ত রোগের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

এই খাদ্যাভাস যদি রোগীরা অনুসরণ করেন তাহলেই অদূর ভবিষ্যতে ঔষধ ছাড়া বড় বড় সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন এবং বাকি জীবনটা সুখকর হবে। ডক্টর বিশ্বরূপ রায় চৌধুরী চন্ডিগড়, যোধপুর এবং জয়পুরে হাসপাতাল এবং ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিগ্রেটেড মেডিকেল নামে একটি হাসপাতাল খুলেছেন। উত্তর প্রদেশের রাজধানী লখনৌ এবং গুরগাঁওতে তিনি খুব তাড়াতাড়ি হাসপাতাল খুলতে চলেছেন।