আমি অক্ষয়ের কথা ভেবে গল্প লিখিনি,সম্রাট পৃথ্বীরাজ ফ্লপের পর বিস্ফোরক পরিচালক

অক্ষয় কুমার অভিনীত সিনেমা ‘সম্রাট পৃথ্বীরাজ’ খারাপভাবে ফ্লপ হয়েছে। সিনেমাটি বড় বাজেটে তৈরি হলেও খরচ মেটাতে পারেনি। এই সিনেমাতে অক্ষয় কুমার ছাড়াও ছিলেন মানসী চিল্লার, সোনু সুদের মতো বড় তারকারা। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন চন্দ্রপ্রকাশ দ্বিবেদী। এখন সিনেমাটি খারাপভাবে ফ্লপ হওয়ার পর পরিচালক দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি অক্ষয় কুমারের কথা ভেবে এই সিনেমার গল্প লিখিনি।’


এই সিনেমা ফ্লপ হওয়ার পর পরিচালক চন্দ্রপ্রকাশ দ্বিবেদী খুবই দুঃখিত। তিনি এই সিনেমাটি নিয়ে খুব উচ্ছ্বসিত ছিলেন, কিন্তু সিনেমাটি সফল হয়নি। এখন এই সিনেমাটি নিয়ে অনেক আক্ষেপ রয়েছে পরিচালকের। তিনি জানান, সানি দেওলের কথা মাথায় রেখেই এই সিনেমার গল্প লেখা হয়েছে। এই সিনেমাতে অভিনয় করার কথা ছিল সানি দেওলের।

ইতিহাসবিদদের সিনেমা নিয়ে সমালোচনা প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, ‘ইতিহাসবিদরা সিনেমাটি নিয়ে আগ্রহ দেখালে আমার ভালো লাগে , কিন্তু আপনারা আমার মতো করে সিনেমার গল্প শুনতে চান না, এটা ভুল।’ আমরা আপনাকে বলি যে, এই সিনেমাটি ইতিহাসের অনেক তথ্যের কারচুপির অভিযোগে সমালোচিত হয়েছিল। এই সিনেমার নাম নিয়েও অনেক বিতর্ক হয়েছিল।


প্রথমে সিনেমাটির নাম ছিল ‘পৃথ্বীরাজ’, কিন্তু পরে তা পরিবর্তন করে ‘সম্রাট পৃথ্বীরাজ’ করা হয়। আসলে, নাম পরিবর্তন না করলে সারা দেশে সিনেমাটির বিরোধিতা করা হবে বলে হুমকি দিয়েছিল কর্নি সেনা। বিশেষ করে রাজস্থানে এই সিনেমা চলবে না। এরপর সিনেমার নামের সামনে বসানো হয় সম্রাট। এই সিনেমার ফ্লপ হওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ ছিল অক্ষয় কুমার।

আসলে, সিনেমাতে পৃথ্বীরাজের ভূমিকায় অক্ষয় কুমারকে বেমানান লাগছিল। বেশ কিছু ক্লিপে অক্ষয় কুমারকে একজন সৈনিকের মতো দেখাচ্ছিলো। তিনি পৃথ্বীরাজের মতো একজন বড় মহারাজাকে কোনো দৃষ্টিকোণ থেকে চিত্রিত করতে সক্ষম হননি, তাই সিনেমাটি ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছিল। এই সিনেমাটি ফ্লপের পর নির্মাতারা অক্ষয় কুমারের উপর অর্থ বিনিয়োগ করতে লজ্জা পাচ্ছেন। নির্মাতারা বলছেন যে, একসঙ্গে এতগুলি প্রজেক্ট করার ফলে অক্ষয় কুমার একটি সিনেমাতে সঠিকভাবে মনোযোগ দিতে পারছেন না।