কেন্দ্রের সরাসরি নির্দেশ BSNL-এর 4G পরিষেবাতে ব্যবহার করা হবে না কোনো চীনা প্রযুক্তির..

চীনা পণ্য বয়কট করার জন্য ইতিমধ্যেই উঠে পড়ে লেগেছে ভারতবাসী। করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার পেছনে একমাত্র হাত রয়েছে চীনের। শুধুমাত্র করোনা ভাইরাস নয় সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতেও চীন সংঘর্ষ করছে। এর আগে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য গোটা বিশ্ব চীনের বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে। এমন কী বহু সংস্থা যারা চীনে ব্যবসা- বাণিজ্য করার জন্য ঘাঁটি গেড়ে বসে ছিল এতদিন ধরে, তারা সেখান থেকে উঠে অন্যত্র ব্যবসা করার জন্য পরিকল্পনা করছে।এক কথায় ব্যান করতে চলেছে চীনি পন্য।

তবে এবার লাদাখে ইন্দো-চীন সংঘর্ষের ফলে BSNL এর 4G পরিষেবা কে উন্নত করার জন্য চীনা প্রযুক্তিকে ব্যবহার করতে নিষেধ করল কেন্দ্র।প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী যা যানা যাচ্ছে সেখানে বলা হচ্ছে এই সিদ্ধান্তটি নেওয়া হয়েছে টেলিকম মন্ত্রকের তরফ থেকে। আর বর্তমানে BSNL এর 4G পরিষেবা কে উন্নত করার জন্য ব্যবহৃত করা হবে না কোনো চীনা প্রযুক্তি।অন্যদিকে এই বিষয়ে কেন্দ্রের দাবি চীনা প্রযুক্তি ব্যবহার করলে গোপন তথ্য ফাঁস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এক্ষেত্রে, তাই এরকম এক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

টেলিকম মন্ত্রকের তরফ থেকে একথাও জানানো হয়েছে ইতিমধ্যে এ-সংক্রান্ত যে টেন্ডার ডাকা হয়েছিল তা পুনরায় বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে। তবে এখানেই শেষ নয় এর পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি টেলিকম সংস্থা গুলি কে জানানো হচ্ছে তারা যেন ধীরে ধীরে চীনা প্রযুক্তির ব্যবহার কমিয়ে দেয়। গত সোমবার দিন লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত এবং চীনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। যেখানে এই সংঘর্ষে এক কর্নেল সহ 20 জন ভারতীয় সেনা শহীদ হয়েছেন। যেখানে ভারতের পাল্টা অ্যাটাকে 63 জন চীনা সেনাকে নিকেশ করেছে ভারতীয় সেনা।

এছাড়া চীনের সোশ্যাল মিডিয়ার দাবি বহু চাইনিজ সৈনিক এখনো পর্যন্ত নিখোঁজ অবস্থায় রয়েছে। এমন কী সেখানকার সরকারের বিরুদ্ধে; ক্ষোভ উগরে দিয়েছে চিনের আমজনতা। অন্যদিকে আমেরিকার বিভিন্ন নিউজ মিডিয়ার তরফ থেকে 30 জনের বেশি চীনা সেনার নিহত হবার খবর প্রকাশ করেছে। আর চীনের প্রতিবেশি তাইওয়ান, যাদের সঙ্গে চীনের বিতর্কিত সম্পর্ক রয়েছে; সেই তাইওয়ানের তরফ থেকেও 43 জন চীন সেনা মারা যাবার কথা স্বীকার করে নিয়েছে।

তবে সংখ্যাটা আরও বেশি, টুইট করে জানাচ্ছে চীনের আমজনতাই। আর একথা বললে ভুল হবে না যে ভারতীয় সেনার তরফ থেকে চীনের সৈনিকদের যে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হয়েছে তা চীনা সৈনিক কখনো কল্পনায় করতে পারেনি। এক একজন ভারতীয় সেনা; 3 জন চীনা সেনার সমান, তা প্রমান হয়ে গেছে এইদিন আবার ও। যদিও প্রথমদিকে চীন স্বীকার করেনি যে; তাদের কতজন সেনা খতম হয়েছে। তবে ধীরে ধীরে আসল তথ্য; সকলের সামনে আসতে শুরু হয়েছে।