আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি হয়ে উঠছে ভয়ঙ্কর, পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে জরুরি বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

বর্তমানে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি দিন দিন খারাপ হতে চলেছে। তালিবানি জঙ্গিদের অত্যাচার ক্রমশ বেড়েই চলেছে। গোটা বিশ্ব জুড়ে প্রত্যেক মুহুর্তে মানুষ এর উদ্বেগ বেড়েই চলেছে আফগানিস্তানের প্রতি। ইতিমধ্যেই বন্ধ করে দিয়েছে তালিবানরা বিমান এবং সর্বত্র যোগাযোগ ব্যবস্থা। এখনও বহু ভারতীয় আটকে পড়েছে আফগানিস্তানে। ভারতীয় দূতাবাসের কর্মীদের মাত্র দুই দফায় উদ্ধার করা গেলেও এখনও বহু কর্মী আটকে রয়েছে সেখানে।

ভারতের সাথে সমস্ত বিমান যোগাযোগ বন্ধ করেছে তালিবানরা। তবুও ভারতীয় বায়ুসেনারা নিজেদের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে প্রতি নিয়ত আফগানিস্তানে থাকা ভারতীয়দের নিরাপদ ফিরিয়ে উদ্ধার এর কাজ চলছে। আফগানিস্তানের এই পরিস্থিতি বুঝে নিজের বাড়িতে একটি বৈঠক ডাকলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী সহ নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল সহ স্বাস্থ্যমন্ত্রী অমিত শাহ, অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন স্রিংলাও।

মঙ্গল বারেই কাবুল থেকে ফিরে এসেছেন বায়ুসেনাদের সহায়তায় ভারতীয় রাষ্ট্রদূত রুদ্রেন্দ্র ট্যান্ডন। তিনি বিমানবন্দর থেকেই আফগানিস্তানের সমস্ত রিপোর্ট পেশ করেছেন। তবে এই বৈঠকে ছিলেন না রাষ্ট্রদূত। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর বাড়িতে আফগানিস্তানের সমস্ত রিপোর্ট পেশ করেন অজিত ডোভাল। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন এই মুহুর্তে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ আফগানিস্তানে আটকে থাকা ভারতীয়দের নিরাপদ ভাবে ফিরিয়ে আনা। সে ক্ষেত্রে তাদের এই মুহুর্তে কি কি প্রয়োজন সেই কথা জানতে চাওয়া হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন তাদের উদ্ধার এর জন্য দরকারে বিমান অপেক্ষা করবে।

 

আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ঠিক কি রকম জেনে তবে ভারত তাদের নিজেদের ভূমিকা স্থির করবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে এই মুহূর্তে তালিবানরা জানিয়েছেন ভারতের প্রতি তাদের একটুও মাথাব্যাথা নেই উল্টে তারা ভারতের সাথে সুসম্পর্ক রাখতে চায় বলেই জানিয়েছে। তবে তালিবানদের এই বক্তব্যের কোন রকম ভরসা বা বিশ্বাস ভারত করছে না বলেই জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

ভারত ও পাকিস্তানের বরাবরই কাশ্মীর নিয়ে সমস্যায় তালিবানরা কোন মাথাব্যথা করবে না বলে জানিয়েছে তালিবানরা। তবে তাদের এই সমস্ত কথায় কোনরকম ভরসা করেই না নয়াদিল্লী সে কথাও স্পষ্ট। এই মুহুর্তে বিদেশমন্ত্রী জয় শঙ্কর আমেরিকায় থাকায় সেখান থেকেই তিনি ভারতের হয়ে বক্তব্য রাখতে চলেছেন ও সকলের সাথে যোগাযোগ করে তিনি সমাধানের পথ খুঁজবে বলেই জানিয়েছেন।