নতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

21 শে জুন মহাজগতিক মুহূর্তের সাক্ষী থাকবে বাংলা, দিনে নেমে আসবে অন্ধকার

চলতি বছর 2020 সালটি এমন একটি সালে পরিণত হয়েছে যা আজ থেকে প্রায় 100 বছর পরও মনে রাখা হবে কারণ এই সালেই দেখা মিলেছে মরণ ভাইরাস COVID-19 এর। তাছাড়া এই বছরেই বাংলা সহ ওড়িশাতে আছড়ে পড়েছে সুপার সাইক্লোন আমফান, অন্যদিকে এই বছরই দেখা মিলেছে মহারাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড় নিসর্গের। আর একই বছরের মধ্যে এতগুলো দুর্যোগ এর আগে এসেছে কিনা তা বলা সন্দেহের। তবে শুধু দূর্যোগের কথা বললেই হবে না, দুর্যোগের পাশাপাশি এই বছরই দেখা মিলেছে একাধিক প্রাকৃতিক ঘটনারও।

যেমনটা 6 জুন দেখা মিলেছে বিরল চন্দ্রগ্রহণের,আর এবারও এরকম এক প্রাকৃতিক ঘটনা ঘটতে চলেছে তবে এবার চন্দ্রগ্রহণ নয়, এবার পালা সূর্য গ্রহণের। আর এই ঘটনাটি ঘটতে চলেছে চলতি মাসের 21 শে জুন। আর এই ঘটনাটি ভারতের উত্তরাংশে ছাড়াও দেখা যাবে চীন, পাকিস্তান আফ্রিকা মহাদেশ থেকেও। তবে সুখবর হল প্রায় 70 শতাংশ গ্ৰহন দেখা যাবে কলকাতাতে। আর এই গ্ৰহনটি দেখা যাবে সকাল 10 টা 46 মিনিট থেকে।

আগামী একুশে জুন দেখা মিলবে এই বিরল সূর্য গ্রহণের, যারা জানেন না তাদের বলে রাখি এই দিনটি হলো বছরের দীর্ঘতম দিন যেটাকে ভূগোল বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয়ে থাকে সামার সলস্টিস। যেখানেই সূর্য গ্রহণের আংশিক গ্ৰাস শুরু হবে সকাল 9 টা 15 মিনিটে। অর্থাৎ যে এলাকার মানুষেরা গ্রহণের যে পূর্ণ দশাটি রয়েছে সেটি দেখতে পাবেন দুপুর 12 টা 10 মিনিটে। আর শেষতম যে স্থানটিতে এই পূর্ণ গ্রাস গ্ৰহন দেখা যাবে অর্থাৎ যে সময়ে এই ঘটনা পরিসমাপ্তি ঘটবে সেটি হবে দুপুর 2 টো বেজে 5 মিনিটে।

আর যেখানে এই গ্রহণের আংশিক শেষতম এলাকায় দেখা যাবে অর্থাৎ সেখানে এই গ্ৰহন কাটবে সেটি হবে দুপুর তিনটে চার মিনিটে। অর্থাৎ সবমিলিয়ে বলা যেতে পারে প্রায় 6 ঘন্টা ধরে বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন প্রান্তে দেখা যাবে প্রকৃতির এই বিস্ময়কর ঘটনা। যখন চাঁদ পৃথিবীর চারপাশে ঘুরতে ঘুরতে পৃথিবী ও সূর্যের মাঝখানে এসে পড়ে তখনই সূর্যগ্রহণের দেখা মেলে। আর খালি চোখে এই ঘটনা দেখা উচিত নয় তাতে চোখের ক্ষতি হতে পারে যার দরুন নাসার তরফ থেকে একাধিক সতর্কতাঃ অবলম্বন করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে এই একুশে জুন। আর যারা সূর্যগ্রহণ দেখতে ভালবাসেন তাদেরকে দূরবীন, টেলিস্কোপ অথবা অপটিক্যাল ক্যামেরার ভিউফাইন্ডারের মাধ্যমে দেখতে বলা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button