করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে বাজার থেকে গায়েব হতে চলেছে প্যারাসিটামল,এরকম অবস্থায় চিন্তার ভাঁজ…

করোনা ভাইরাস আতংক’- এর জেরে এবার একাধিক অতি আবশ্যক ওষুধ অমিল হতে পারে, যার মধ্যে নাম রয়েছে প্যারাসিটামল বা আইব্রুফেন এর মত ওষুধের। আর একথা খোদ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স নিজেই জানিয়েছেন। তবে শুধু ওষুধই নয় এবার এই ভাইরাস আতঙ্কের জোরে একসঙ্গে স্মার্টফোন সাথে সাথে নতুন শিল্পের খোঁজখবর পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যাবে।

আর এ থেকেই তারা নিশ্চিত হয়েছেন যে চীনে করোনা ভাইরাস আতঙ্ক যদি এইভাবে চলতে থাকে তাহলে ফেব্রুয়ারি মাসের পর থেকে বাজারো পাওয়া যাবেনা অতি আবশ্যক ওষুধগুলোও। কারণ এই সংস্থার আশা করছে এই ভাইরাসের জেরে যদি চীনে এরকম শাটডাউন ক্রমশ চলতে থাকে তাহলে তার জেরে ফেব্রুয়ারি মাসের পর থেকে বাজারে বাড়তে পারে ওষুধের দাম। এরই সাথে কথা বলে রাখি যে ভারতে প্রায় 90% ওষুধ তৈরিতে ভূমিকা রয়েছে চীনের যদি এরকম ভাবে বন্ধ চলতে থাকে তাহলে তার প্রভাব পড়বে ভারতের মধ্যেও।

এরই মধ্যে বেশকিছু অতি আবশ্যক ওষুধ কে চিহ্নিত করা হয়েছে যেগুলি চীনের উহার প্রদেশ থেকে ভারতে আমদানি করা হয়ে থাকে, তাই ভারত ও এবার সেগুলির বিকল্প উৎপাদন ব্যায় ব্যবস্থার কথা ভাবছে। তাই এ বিষয়ে চিন্তিত রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তবে তাতে করে কতটা সুরাহা মিলবে তা বলা কঠিন। এখনো পর্যন্ত চীনে করোনাভাইরাস এজের মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে 1500 জনেরও বেশি। আর গোটা বিশ্ব জুড়ে যদি বলা হয় এই ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা তাহলে তা 60000 এর আশেপাশে হবে।

এমনকি এই ভাইরাসের জেরে উহানে থাকা ভারতীয়দের একটি বিশেষ এয়ার ইন্ডিয়া বিমানে করে দেশে নিয়ে আসা হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। অন্যদিকে প্যারাসিটামল মত ওষুধের কতটা ব্যবহার হয় তা সকলেই জানেন শুধু জ্বরের ক্ষেত্রে নয় যে কোন ব্যথা-বেদনা উপশমে কাজে লাগে এই ওষুধ।তাই একথা বলা বাহুল্য যে করানো ভাইরাসের জেরে কেউ আক্রান্ত হোক বা না হোক বাজারে কিন্তু প্যারাসিটামলের মতো ওষুধ অমিল হয়ে যায় তাহলে এরকম এক পরিস্থিতিতে ওষুধের দাম তো বাড়বে সাথে সাথে পরিস্থিতিও রীতিমতো শোচনীয় হয়ে উঠবে।

Related Articles

Close