মনোনয়নপত্রে উল্লেখ করলেন মুখ্যমন্ত্রী তার সম্পত্তির পরিমাণ! নেই কোনো গাড়ি, নেই কোন চাষ বাসযোগ্য জমিও

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটের ঘন্টা বেজে গেছে। এবারে বিধানসভা ভোটের হটস্পট হল নন্দীগ্রাম। নন্দীগ্রামে এবার তৃণমূলের প্রার্থী হচ্ছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। অন্যদিকে প্রতিদ্বন্দী বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন প্রাক্তন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রামে প্রার্থী হিসেবে 10 মার্চ মুখ্যমন্ত্রী মনোনয়নপত্র জমা দেন হলদিয়াতে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ জানা গিয়েছে।

 

ভোটের প্রচার চালানোর পর মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তার সম্পত্তির পরিমাণ সম্পর্কে বিশদে জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর জানিয়েছেন যে, তাঁর ব্যাঙ্ক ও ন্যাশনাল সেভিং সার্টিফিকেট রয়েছে ১৬ লাখ ৭২ হাজার ৩৫২ টাকা ৭১ পয়সা। হাতে তাঁর নগদ টাকা রয়েছে রয়েছে ৬৯ হাজার ২৫৫ টাকা। তাঁর অলংকারের পরিমাণ ৯ গ্রাম ৭৫০ মিলিগ্রাম।

Mamata Banerjee

এর পাশাপাশি তিনি উল্লেখ করেন যে তাঁর নিজের কোনও গাড়ি নেই বা চাষ যোগ্য কোনও জমিও নেই।তাঁর ব্যবসা-বাণিজ্য করবার জন্য কোনো জায়গা নেই। তাছাড়া তার কোথাও ধার নেই। ইনকাম ট্যাক্সের টাকাও কোথাও বাকি নেই। পরিবার সূত্রে তিনি কোনো সম্পত্তি পাননি। এই মনোনয়নপত্রের সামনে সবিস্তারে জানানো হয়েছে যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ২০১৮-১৯ ২০ লাখ ৭১ হাজার ১০ টাকা। ২০১৯-২০ সালে তা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ৩৪ হাজার ৩৭০ টাকা।

আগের বছর থেকে এই বছরের ইনকাম মুখ্যমন্ত্রীর কিছুটা হলেও কমেছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে মনোনয়নপত্রে জানিয়েছেন যে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন এই মুখ্যমন্ত্রী।”যোগেশচন্দ্র ল কলেজ” থেকে তিনি আইনে গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি অর্জন করেন। এই মনোনয়নপত্রে চারজন প্রস্তাবকের কথা উল্লেখ করেন আবদুস সামাদ, স্বদেশরঞ্জন দাস, মহাদেব বাগ৷ এই চারজন প্রস্তাবক হলেন, আবদুস সামাদ, স্বদেশরঞ্জন দাস, মহাদেব বাগ৷ এছাড়া নন্দীগ্রাম আন্দোলনে শহীদ ভগীরথ মা।এক্ষেত্রে নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে রেখেছেন শেখ সুফিয়ান’কে।