প্রাথমিক পড়ুয়াদের কথা ভেবে বড়ো পদক্ষেপ নিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

প্রাথমিকেই পড়ুয়াদের যাতে বিজ্ঞান ও অঙ্ক বিষয়ে আরো উন্নতির লাভ করতে পারে তার কথা ভেবে একটা দারুণ পদক্ষেপ নিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ভারতীয় ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে উন্নত হতে পারে তার জন্য আইআইটি ও আইআইএসইআর এর সাহায্য নেবে এবার কেন্দ্রীয় সরকার। এই বৃহস্পতিবার মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর এ বিষয়ে বলেন, নিকটবর্তী স্কুলগুলিতে ছাত্র-ছাত্রীদের পথ দেখাবে আইআইটি ও আইআইএসইআর। পরের প্রজন্মের অংক বিজ্ঞান ইঞ্জিনিয়ারিং ও প্রযুক্তির গুরুত্বের কথা মাথায় রেখেই তিনিএই ব্যবস্থা করেছেন বলে জানিয়েছেন।তিনি বলেন,” প্রাথমিক স্তর থেকেই যদি ছাত্র-ছাত্রীদের মজার ছলে অংক,বিজ্ঞান শেখানো হয় তাহলে সেটা অনেক কাজে দেবে।

অড়ম্বরের সাথে অংক, বিজ্ঞান শেখার প্রয়োজন হয় না। প্রাথমিক শিক্ষকরা অনেক বড় ভূমিকা পালন করেন এসব ক্ষেত্রে। জাভড়েকর আরো জানান, যে মোদি সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, আইআইটি ও আইআইএসইআর বিশ্ববিদ্যালয়ের নিকটবর্তী 10 থেকে 15 টি স্কুলে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মেন্টরের ভূমিকা পালন করবে। অংক এবং বিজ্ঞান যাতে ছাত্রছাত্রীরা সঠিক শিখতে পারে তার জন্য এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের অংক বিজ্ঞান নিয়ে যদি সঠিকভাবে শিক্ষা দেওয়া হয় তাহলে ছাত্রছাত্রীরা উৎসাহিত হবে বলে মনে করেন জাভড়েকর। তিনি বলেন, অংক ও বিজ্ঞানে যদি ছাত্রছাত্রীরা একবার পিছিয়ে পড়ে তাহলে সেটা আর পূরণ হয় না। জাভড়েকর এ বিষয়ে আরো কতকগুলি তথ্য জানান। তিনি বলেন, দেশে গবেষণার জন্য যাতে উৎসাহিত হয় তাই অনেকগুলি পদক্ষেপ নিয়েছেন মোদি সরকার।

যেমন উদ্ভাবন খোলা হয়েছে। আরেকটি পদক্ষেপ হল হোস্টেল রুম চালানোর জন্য স্টার্ট আপে অনুমোদন দিয়েছে সরকার। পিএম রিসার্চ ফেলো নামক একটি প্রকল্পে বিজ্ঞানীদের এক লক্ষ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন যে গোটা দেশে 100 টির মত গবেষণা চলছে। 2000 টি অটল টিঙ্কারিং ল্যাব খোলা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। এমনকি শুধু এই নয় আরও তিন হাজার এমন ব্যবস্থা তৈরী করার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার। স্মার্ট ইন্ডিয়া হ্যাকাথনে প্রতিযোগীর সংখ্যা 40 হাজার থেকে দেড় লক্ষ হয়েছে বলে দাবি করেন মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী জাভড়েকর।