নতুন খবররাজনৈতিক

ক্ষমতায় এলেই চিটফান্ডের সমস্ত টাকা ফেরাবে বিজেপি! বার্তা বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের।

মোদি সরকারের পক্ষ থেকে উঠে আসছে এক বিরাট বার্তা । গত মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি শহরে এক বৈঠকে ভারতীয় জনতা পার্টির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ আশ্বাস দিলেন, আগত লোকসভা ভোটে বাংলায় পদ্মফুল ফোটে চিটফান্ড প্রতারকদের শাস্তি এবং সাধারন মানুষ টাকা ফিরে পাবে। শুধু তাই নয়, গেরুয়া শিবিরের চাণক্য (অমিত শাহ ) মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছবি আঁকা নিয়ে কটাক্ষ করে মন্তব্য রাখলেন। তার কথায়, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর ছবির দাম যেকোনো চিত্রকার এর থেকেও বেশি দামে বিক্রি করা হয়েছে। আর সেসব চিত্রগুলি ক্রয় করেছে এই চিটফান্ডের মালিকরা ।

 

 

তাই পুলিশ এর ক্ষেত্রে কোন মতেই এইসব চিটফান্ডের মালিকদের ধরা সম্ভব নয় কারণ, কান টানলে তো মাথা আসবেই ।এছাড়াও ওই জনসভায় আগত জনসাধারণকে কেন্দ্র করে তিনি জানিয়েছেন, মমতা দিদির ছবি বিক্রি হয় কত দামে আপনারা জানেন ?
একজন শিল্পীর ছবি বিক্রি হয় ১০ হাজার, ২০ হাজার ,৩০ হাজার , সর্বোচ্চ ১ লাখ কিন্তু মাননীয় মমতা দিদির প্রতিটি চিত্রের মূল্য কোটির উপরেই যায় । আর দিদির আঁকা চিত্রগুলি কেনেন সেই সব চিটফান্ডের মালিকেরা , তাই যতদিন রাজ্যে দিদি ক্ষমতায় থাকবেন , ততদিন কোনো মতেই সেইসব চিটফান্ডের মালিকদের ধরা সম্ভব নয় । আর দুঃখের বিষয় হল যে, চিটফান্ডের মালিকদের ধরা না পড়া পর্যন্ত সাধারণ মানুষ তাদের কষ্টের টাকাও ফিরে পাবে না। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের এখন একটাই লক্ষ্য বাংলায় কিভাবে খুশির পদ্ম ফুল ফোটানো যায়।

 

 

ইতিমধ্যেই তার কার্য শুরু করে দিয়েছেন এবং তিনি আশ্বাস দিয়ে জনসাধারণকে বলেছেন, ” পশ্চিমবঙ্গের বিজেপিকে সরকার গড়ার আপনারা একবার সুযোগ দিয়ে দেখুন, কথা দিচ্ছি প্রতিটি চিটফান্ডের মালিকদের ধরা হবে এবং সাধারণ মানুষেরা তাদের কষ্টের জমানো টাকা ফিরে পাবে”। আর চিটফান্ডের কথা উঠতে শুরু হলে তিনি বলেন , এই চিটফান্ডের কান্ড শুরু হয় ২০১১ থেকে, কিন্তু ২০১৩ তে চিটফান্ড কেলেঙ্কারি প্রতারিত হয় লক্ষাধিক মানুষ আর তারপর থেকেই চিটফান্ডের প্রকোপ দিন দিন বাড়তেই থাকে একের পর এক যেমন অ্যালকেমিস্ট, রোজভ্যালি, বেসিল , আরো নানান কম্পানি লক্ষ লক্ষ মানুষের টাকা লুট করে নেয়। আজ ছয় বছর আগে ২০১৩ তে চলা চিটফান্ডের কেস আজও কোর্টের দরজাই ঘুড়ছে, রায় মিলেনি আজ পর্যন্ত।

 

সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এখন জনসাধারণের লুট হওয়া অর্থ ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে ২০১৯ এর লোকসভা ভোটে পদ্ম ফুল ফোটানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আর সত্যিই যদি বিজেপি এই প্রতারিত চিটফান্ডের টাকা ফিরিয়ে আনতে পারে তাহলে নিঃসন্দেহে ২০১৯ এ বাংলায় বিজেপির পদ্মফুল ফুটবে। আরো এরকম নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।

Related Articles

Back to top button