উত্তরপ্রদেশের আসন্ন নির্বাচনে পারদ চড়াছে বিজেপি, যোগীর ধারে কাছে নেই বিরোধীরা

দেশের রাজনৈতিক মহলে উত্তেজনার পারদ চড়ছে আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে । ইতিমধ্যে পাঁচ রাজ্যে নির্বাচনের দামামা বেজে গেছে । সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে লখিমপুর কান্ড ঘটে যাওয়ার পর রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে পরিস্থিতিতে আসন্ন নির্বাচনের আগে বিরোধীরা ক্রমাগত সরকারকে নিশানা করে চলেছে অন্যদিকে পাঞ্জাবের সাথে কংগ্রেসের দ্বন্দ্ব চলছে দেশের পাঁচ রাজ্য উত্তরপ্রদেশ , পাঞ্জাব ,উত্তরাখান্ড, মনিপুর এবং গোয়া আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক উত্তেজনা তুঙ্গে।

বিগত কয়েক বছর ধরে প্রায় পাঁচ বছর ধরেই বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে পাঁচ রাজ্যে সি ভোটার মানুষের রায় চেয়েছিল। এর জন্য একটি সমীক্ষা চালু করা হয়। ২০২১ সালের ৪ সেপ্টেম্বর থেকে ২০২১ সালের ৪অক্টোবর পর্যন্ত এই সমীক্ষা চলে। একমাস ব্যাপী চলা এই সমীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল ৯৮ হাজার মানুষ।

পাঞ্জাব:-

২০২১ সালের আগস্ট মাসের সমীক্ষা অনুযায়ী পাঞ্জাবের আম আদমি পার্টি জনপ্রিয়তা অত্যন্ত বেশি। তার কারণ পাঞ্জাব একটি কংগ্রেস শাসিত রাজ্য। আগে সমীক্ষা অনুযায়ী রাজ্যের সমগ্র নাগরিকদের মধ্যে ৩৬ শতাংশ মানুষ AAP এর পক্ষে রায় দিয়েছে। সেখানে ২২ শতাংশ মানুষ পছন্দ করেছে আকালী দলকে। ৬ শতাংশ মানুষ পছন্দ করেছে অন্যান্য দিক এবং বিজেপিকে সেখানে মাত্র ৪ শতাংশ মানুষ পছন্দ করেছে। সমীক্ষা অনুযায়ী AAP পেতে পারে ৪৯-৫৫টি আসন। প্রায় ১২৭ টি আসন পেয়ে এই দল পাঞ্জাবের প্রথম তালিকায় উঠে আসতে পারে। কারন কংগ্রেস সেখানে পাচ্ছে ৩৯-৪৭টি আসনএবং অকালী দল পাচ্ছে ১৭-২৫টি আসন। বিজেপি এবং অন্যান্যরা সবথেকে কম আসন পাচ্ছে ।সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি এবং অন্যান্য দলের আসন সংখ্যা ০-১ ।

Advertisements

উত্তরাখণ্ড :-

সি-ভোটার সমীক্ষা অনুযায়ী উত্তরাখণ্ডের ভারতীয় জনতা পার্টি অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। সমীক্ষায় উত্তরাখণ্ডে কংগ্রেস পেতে পারে ২১-২৫ টি আসন। অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি সমীক্ষা অনুযায়ী পেতে পারে ০-৪ টি আসন। বাকিরা মাত্র দুটি আসন পাবে বলে মনে করা হচ্ছে । এক্ষেত্রে বিজেপি ৪২-৪৬ টি আসন দখল করতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Advertisements

মনিপুর:-

এই রাজ্যে ৬০ টি বিধানসভার আসন সংখ্যা রয়েছে। প্রথম থেকেই রাজনৈতিক হাওয়া দেখে মনে করা হচ্ছে এই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন ত্রিশঙ্কু হতে পারে। সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি সবথেকে বেশি সংখ্যক আসন পেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে ২১-২৫ টি আসন পেতে পারে ভারতীয় জনতা পার্টি। সেখানে কংগ্রেস এবং এনপিএফ পেতে পারে যথাক্রমে ১৮-২২ ও ৪-৮ টি করে আসন। সমীক্ষায় দেখানো হচ্ছে অন্যান্য পেতে পারে ১-৫ টি আসন। ।

গোয়া:-

সি- ভোটের সমীক্ষা অনুযায়ী 40 আসন বিশিষ্ট এই রাজ্যের ভারতীয় জনতা পার্টি সংখ্যাগরিষ্ঠতার হারিয়ে সরকার গঠন করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে কারণ সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে বিজেপি ২৪-২৮ টি আসন পেতে পারে। সেখানে কংগ্রেস এবং আম আদমি পার্টি পেতে পারে যথাক্রমে ১-৫ ও ৩-৭ কি করে আসন। অন্যান্যরা ৪-৮ টি আসন পেতে পারে।

উত্তর প্রদেশ :-

অন্যান্য রাজ্য গুলোর মত সি ভোটার সমীক্ষা অনুযায়ী এরাজ্যেও এগিয়ে আছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এ রাজ্যে ৪১ শতাংশ ভোট পেতে পারে বিজেপি। উত্তরপ্রদেশে সমাজবিরোধী পাটি পেতে পারে ৩২ শতাংশ ভোট । এছাড়া বহুজন সমাজ পার্টির পেতে পারে ১৫ শতাংশ ভোট। উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেস এবং অন্যান্যরা সি-ভোটার সমীক্ষা অনুযায়ী পেতে পারে মাত্র ৬ শতাংশ ভোট। এই বিজেপি পেতে পারে ২৪১-২৪৯ টি আসন সেখানে সমাজবাদী পার্টি পেতে পারে ১৩০-১৩৮ টি আসন। কংগ্রেস এক্ষেত্রে উত্তরপ্রদেশে পাচ্ছে মাত্র ৩-৭ টা আসন। উত্তরপ্রদেশে বহুজন সমাজ পার্টি পাচ্ছে ১৫-১৯ টি আসন।

সুতরাং পাঁচটি রাজ্যের সি ভোটার সমীক্ষা অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে পাঁচ রাজ্যের মধ্যে ভারতীয় জনতা পার্টি তিন রাজ্যে এগিয়ে আছে। অন্যদিকে ভোটের আসন সংখ্যা দেখে মনে করা হচ্ছে পাঞ্জাব খোয়াতে পারে কংগ্রেস । তবে মনিপুরের সরকার এখনো কে গঠন করবে সে বিষয়ে এখনো কোনো স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না।