১৭ সেপ্টেম্বর থেকে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত দেশজুড়ে পালন করা হবে প্রধানমন্ত্রীর জন্মোৎসব

আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর ৭১ বছর পূর্ণ করবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ১৯৫০ সালে ১৭ সেপ্টেম্বর তিনি জন্মগ্রহণ করেন ।তাঁর শুভ জন্মদিন উপলক্ষে আগামী তিন সপ্তাহ ধরে ভারতীয় জনতা পার্টির তরফ থেকে বিভিন্ন উৎসবে এবং কর্মসূচি পালন করা হবে এমনটাই জানালেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিজেপির তরফ থেকে জানানো হচ্ছে ,এই সময়ে পালন করা হবে একসাথে দুটি উৎসব অর্থাৎ জোড়া উৎসব । কারণ একদিকে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন ,অপরদিকে প্রশাসক হিসাবে তার কুড়ি বছর পূর্ণ হল । তাই ভারতীয় জনতা পার্টির তরফ থেকে একসাথে এই দুটো উৎসব পালন করা হবে বলে জানানো হচ্ছে।

এই দিন সোমবার সাংবাদিক বৈঠকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানালেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষের কথামতো জানা যায় এই অনুষ্ঠানে ‘নমো অ্যাপ’ এর মাধ্যমে ভার্চুয়ালি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হবে । এছাড়া আয়োজন করা হবে রক্তদান শিবিরেরও। দিলীপ ঘোষের কথামতো যেহেতু এ বছর প্রধানমন্ত্রী ৭১ বছরে পা দিচ্ছেন সেই উপলক্ষে ৭১ টি নদীর ঘাট পরিষ্কার করা হবে। ১৭ সেপ্টেম্বর শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন নয় এই বছর তাঁর প্রশাসক হিসাবে কুড়ি বছর পূর্তি হবে ।


২০০১ সালের এই দিনে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী পদে তিনি বসেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে টানা ১৩ বছর কাজ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শেষ ৭ বছর ধরে তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দেশ পরিচালনা করছেন। সাধারণত পুরনো রেকর্ড দেখলে জানা যায় এত লম্বা সময় ধরে দেশের কোন নেতা প্রশাসক পদে থাকেন নি । প্রধানমন্ত্রী একটানা প্রশাসক হিসেবে নেতৃত্ব করার কথায় আপ্লুত বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ । ভারতীয় জনতা পার্টির তরফ থেকে নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিন এবং এত দিন একটানা প্রশাসন হিসাবে সুষ্ঠুভাবে কাজ পরিচালনা করার জন্য জোড়া উৎসব পালন করা হবে বলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে ।

বিভিন্ন রকমের কর্মসূচি যেমন রক্তদান শিবির, বিভিন্ন নদীর ঘাট পরিষ্কারট ,প্রতিবন্ধীদের সেবা ,আরো বেশ কিছু কর্মসূচি রাখা হচ্ছে। এই সমস্ত কর্মসূচি “নমো অ্যাপ “এর মাধ্যমে দেখানো হবে । জাতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করবেন বলে জানা যাচ্ছে।

কিছুদিন আগে ভারতের বেকারত্ব বৃদ্ধি এবং চিকিৎসা বিভ্রাট এবং ভ্যাকসিনেশনের অব্যবস্থার প্রতি অমিত মিত্র কেন্দ্র কে কটাক্ষ করেছিলেন । এসব প্রসঙ্গে একাধিক প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ । কলকাতায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ভেকশিনেশন আসা বন্ধ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বক্তব্য রাখেন। তাঁর কথায় পশ্চিমবঙ্গের ভ্যাকসিনেশনের কোন স্বচ্ছতা নেই । সামনে তৃতীয় ঢেউ আসতে চলেছে অথচ উপযুক্ত ভ্যাকসিন নেই রাজ্যে। পয়সা দিলে বেসরকারি জায়গায় ভ্যাকসিন মিলছে । কিন্তু বাজারে কোথা থেকে ভ্যাকসিন আসছে এবং যাচ্ছে তার কোন হিসাব নেই।

এদিকে ত্রিপুরায় বিজেপি কর্মসূচি পালন করতে না দেবার প্রসঙ্গে যথেষ্ট ক্ষোভ প্রকাশ করেন দিলীপ ঘোষ । অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর উপর তার যথেষ্ট বিরূপ বক্তব্য শোনা যায়। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এই দিন বলেন ” কি ভেবেছেন নিজেকে যুবরাজ? পুলিশকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে. বিজেপি র কোন মিটিং মিছিল করতে দেওয়া হচ্ছে না। কোন খেলার কথা তিনি বলতে চাইছেন!?তল্লাশি চালানো হোক উনার বাড়িতে, উনার বাড়িতে খুনি আছে। ” অন্যদিকে উড়ালপুল বিতর্কেও তিনি যথেষ্ট ক্ষুব্ধ। তাঁর কথায় তৃণমূল আমলে তো কোন উন্নতি হয়নি । একটা উড়ালপুল করতে পারিনি তৃণমূল । শুধুমাত্র ফিতে কেটে উদ্বোধন ছাড়া মমতা ব্যানার্জি আর কিছু করতে পারেননি । দিলীপ ঘোষ এর প্রশ্ন “কাটমানি নেওয়া ছাড়া আর কি করেছে এই দল!? “

তবে এতো কিছুর মধ্যে রাজ্যসভায় কংগ্রেস বিজেপির এত আয়োজনে কটাক্ষ করেছেন। কংগ্রেসের চিফ হুইপ জয়রাম রমেশ এর বক্তব্য “যেখানে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। সেখানে বিজেপির আয়োজন বেশ চোখে লাগার মত । এই সমস্ত কর্মসূচি দেখে মনে হচ্ছে তাদের সিন্ধুক ফুলেফেঁপে উঠছে। “