শুরু হওয়ার দু’মাসের মধ্যেই বড়সড় গলদ! পদ্মা সেতু নিয়ে চরম চিন্তায় ডুবলো বাংলাদেশ

পদ্মা সেতু নিয়ে বড়সড় ত্রুটি সামনে এসেছে, যা নিয়ে একপ্রকার চিন্তিত বাংলাদেশ সরকার। বেশ কিছুদিন আগেই দীর্ঘতম পদ্মা সেতু উদ্বোধন হয়ে গিয়েছে। যা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের উত্তেজনার শেষ নেই। তবে শুধুমাত্র যান চলাচলই নয় দীর্ঘ ১৬৯ কিমি রেলপথ বানানোর পরিকল্পনাও করেছেন বাংলাদেশ সরকার। এটি মূলত পদ্মা সেতু তৈরীর সময় থেকেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। তাই সেই মাফিক কাজও চলছিল জোর কদমে। পরবর্তী সময়ে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হওয়ায় কাজ স্থগিত রাখা হয়।

তবে শোনা যাচ্ছে ট্রেন চলাচলের জন্য রেলপথটি উপযোগী হতে আরো বেশ কিছুটা সময় লাগবে। আশা করা যায় ২০২৪ সালের মধ্যে কাজটি সম্পূর্ণ হবে। তবে তার আগেই বড় মাপের ত্রুটি চোখে পড়েছে। এমনকি সেতুর নকশা পর্যন্ত পরিবর্তন করতে হতে পারে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করছে বাংলাদেশ সরকার।

সেতুর ওপরে রেললাইনের যে স্প্যান বসানো হয়েছে সেগুলিতে ২৯৫৯ টি স্ল্যাব বসানো হয়েছে। তবে সেই স্যাব গুলি নকশা করা স্ল্যাবের উচ্চতার তুলনায় অনেকটাই বেশি। যার ফলে রেল যাতায়াতের অসুবিধা দেখা দিতে পারে। এমনকি বড় দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

যত দ্রুত সম্ভব ওই পাত এবং স্ল্যাব সরিয়ে পুনর্নির্মাণের কথা ভাবা হচ্ছে। তবে এতকিছু ভুল ত্রুটি সত্ত্বেও বাংলাদেশ সরকার চেষ্টা করছে যাতে আগামী ২০২৪ সালের মধ্যেই এই প্রকল্পটি তারা সম্পূর্ণ করতে পারে কারণ এই রেলপথের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছিল ২০১৮ সাল থেকে তাই আর যাতে বেশি দেরি না হয় সেদিকে নজর রাখছেন বাংলাদেশ সরকার।