রেল মন্ত্রকের বড় ঘোষণা, আগামী জুলাই মাস থেকে বন্ধ হচ্ছে হাওড়া-শিয়ালদার 17 জোড়া ট্রেন…

ভারতে করোনা সংক্রমণ দিন দিন বেড়েই চলেছে। তবে একদিকে যেমন করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে তেমনি আবার অপরদিকে কিছুটা স্বস্তি দিয়ে বাড়ছে সুস্থতার হার। তবে করানোর জন্য সারা দেশজুড়ে দীর্ঘদিন যাবত লকডাউন ঘোষণা করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার।এই দীর্ঘমেয়াদি লকডাউন ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থার মুখ থুবড়ে পড়েছে। তাই লকডাউন কে ধীরে ধীরে শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। গত মার্চ মাস থেকে সমস্ত যাত্রীবাহী লোকাল ট্রেন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রেলমন্ত্রক।

এরপর পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর জন্য কিছু শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানো হয়। এছাড়াও চালানো হয় কিছু এক্সপ্রেস, মেল ট্রেন গুলিও। এই এক্সপ্রেস এবং মেল ট্রেন যাত্রীর সংখ্যা খুবই কম ছিল। এর ফলে রেলের অনেক টাকার ক্ষতি হয়। তাই এবার খরচ কমানোর জন্য রেলের তরফ থেকে কতগুলো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে আগামী টাইম টেবিলে হাওড়া এবং শিয়ালদা থেকে বাতিল হতে চলেছে 17 জোড়া মেল এক্সপ্রেস এবং প্যাসেঞ্জার ট্রেন।

এছারাও খরচ কমানোর জন্য রেলের তরফ থেকে বর্তমানে কর্মী নিয়োগ বন্ধ রাখা হয়েছে এবং 50% কর্মীকে স্বেচ্ছা অবসরে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল প্রায় 3000 ট্রেন বন্ধ করার নির্দেশ দিয়ে জানান, ওই সমস্ত ট্রেনগুলো নির্ধারিত সময়সূচির ট্রেন গুলির নাম রেল বোর্ডে পাঠানোর জন্য বলেছেন তিনি। আর এরপরে হাওড়া এবং শিয়ালদা থেকে চলা 17 জোড়া ট্রেনকে বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে পূর্ব রেল সূত্রে যে খবর পাওয়া গেছে, তাতে রেলমন্ত্রী আগামী টাইম টেবিল থেকে প্রায় 3000 ট্রেনকে বাতিল করে দিতে বলেছে।

এছাড়াও প্রায় 10,000 স্টপেজ বাতিল করে দিতে বলেছেন তিনি। পণ্যবাহী ট্রেনের জন্য আরও বেশি করে করিডর গড়ে তোলার জন্য এই সিদ্ধান্ত ব্যাপকভাবে কার্যকরী হবে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও পূর্ব রেলের অপারেশন এবং কমার্শিয়াল কর্তাদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ধীর গতির ট্রেন এবং ঘনঘন স্টপেজ এই সমস্ত কিছু আয়ের দিক থেকে একেবারে লাভজনক নয়। তাই এই সমস্ত কিছু বিষয়গুলি মাথায় রেখেই রেলের তরফ থেকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মোট 17 জোড়া ট্রেনের মধ্যে 10 জোড়া মেল এবং এক্সপ্রেস ট্রেন রয়েছে এবং বাকি সাত জোড়া প্যাসেঞ্জার ট্রেন রয়েছে।

রেল মন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী মাস থেকে অর্থাৎ জুলাই মাসের নতুন টাইম টেবিল থেকে এই সমস্ত ট্রেন গুলি বাতিল হবে। তবে এখনো পর্যন্ত নতুন টাইম টেবিল প্রকাশ করা হয়নি রেলের তরফ থেকে। বাতিল হওয়া ট্রেন গুলির মধ্যে রয়েছে, রামপুরহাট- বর্ধমান থ্রি সাপ্তাহিক, আনন্দবিহার- শিয়ালদহা এক্সপ্রেস, রামপুরহাট-হাওড়া ইন্টারসিটি 3 সাপ্তাহিক, কলকাতা- পাটনা এক্সপ্রেস সহ আরো 11 জোড়া মেল, এক্সপ্রেস ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন।