মসজিদে জঙ্গিহামলা, ভিতরে ৬ বাঙালি ক্রিকেটার, মৃত অনেকে..

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকবাজের হামলায় নিহত হয়েছেন কমপক্ষে ছয় জন। আহত বহু। হামলায় সময় মসজিদের কাছেই ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। যদিও তাঁরা সবাই সুরক্ষিত আছেন বলেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে। এ দিনের হামলায় পরই গোটা এলাকায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এখনও চলেছে গুলির লড়াই। তখন ঘড়িতে বেলা পৌনে ২ টো। মসজিদের ভিতরে চলছে সাপ্তাহিক নমাজ পর্ব। জড়ো হয়েছিলেন বহু মানুষ। হঠাৎ পর পর গুলির শব্দ। আর তারপরই চারদিকে ছুটোছুটি পরে গেল মসজিদের ভিতর। সেনার পোশাকে থাকা বন্দুকবাজের নির্বিচারে গুলি চালিয়ে চলেছে তখনও। মুহূর্তে রক্তে ভেসে গেল মসজিদ চত্বর। সরকারি সূত্রে খবর, এই ঘটনা স্থলেই মৃ্ত্যু হয়েছে অন্তত ছ’জনের।

 

টনাস্থল নিউজিল্যান্ডের ক্রাইসচার্চের সাউথ আইল্যান্ডের আল নূর মসজিদ। শুক্রবার এখানেই এক (যদিও কারও কারও দাবি দু’জন) বন্দুকবাজের হামলায় প্রাণ হারালেন কমপক্ষে ছয় জন। আহত বহু। যাঁদের মধ্যে অনেকের অবস্থাই গুরুতর। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ জানিয়েছে, সেনার পোশাকে মসজিদের ভিতর ঢুকেছিল ওই বন্দুকবাজ। মসজিদে প্রায় ৫০ রাউন্ড গুলি চলে। এ দিনের হামলায় অল্পের জন্য রক্ষা পান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। হামলায় সময়ই মসজিদে নমাজ পড়তে যাচ্ছিলেন তাঁরা। এই মুহূর্তে নিউজিল্যান্ড সফরে রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। হামলার পর বাংলাদেশের ক্রিকেটার তামিম ইকবাল টুইট করে জানিয়েছেন, সব ক্রিকেটারই সুরক্ষিত আছেন। টুইট করে একই কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, কালো পোশাকে মসজিদের ভিতর ঢুকেছিল ওই বন্দুকবাজ। তাঁর কথায়, ‘‘আমি তখন মসজিদের অন্য একটি দরজার সামনে দাঁড়িয়েছিলাম। সাপ্তাহিক নমাজ পাঠ চলছিল। হঠাৎ গুলি চালাতে শুরু করে ওই বন্দুকবাজ।

আমি কম করে চার-পাঁচ জনকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। বরাত জোরে মসজিদ থেকে পালাতে পেরেছি।”এ দিনের হামলার পরই নিউজিল্যান্ডের পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে৷ গোটা এলাকা ঘিরে রাখা হয়েছে। এখনও গুলির লড়াই চলছে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Open

Close