টার্গেট ২০১৯ ! ভোটের আগেই লোকসভা নির্বাচনের বড় দায়িত্ত্ব দেওয়া হলো মুকুল রায়কে !

এবারও পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের পর লোকসভা ভোটের জন্য আশ্বাস রাখলেন অমিত সাহ মুকুল রায়ের ওপর। রাজ্যের লোকসভা ভোটের দায়িত্ব সঁপে দিলেন মুকুলের উপর বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তিনি আরো বললে যে এবার পাপ্তন সংসদ লোকসভা ভোটে বিজেপির খুঁটি সাজাবেন।অমিত শাহ এর বক্তব্যে এটা স্পষ্ট জানা গেল যে পাপ্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুকুল রায় কে তিনি পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন সমিতির সংযোজক পদে নিযুক্ত করলেন।এবারের বিজেপির হয়ে পঞ্চায়েত ভোটে অধিনায়ক ছিলেন মুকুল রায়‌।যার ফলস্বরূপ বাম-কংগ্রেস কে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছিল বিজেপি গেরুয়া শিবির।

বলাবাহুল্য যে মুকুলের পারফরমেন্সে অত্যাধিক খুশি অমিত শাহ। তাই তার বড় ফল সরুপ মুকুল রায় পেলেন আবার সেই দায়িত্ব। লোকসভা ভোটে বাংলা গেরুয়া শিবিরের নেতৃত্ব দেবেন পাপ্তন তৃণমূলের চাণক্য।গত বছরেই নভেম্বর মাসেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন মুকুল রায়, তারপর থেকেই তার নতুন দলে উচ্চতা বেড়েছে। অমিত শাহ ও এটাও বলেন যে মুকুল রায়ের মত রাজনীতিক পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি তে আর কেউ নেই নেতৃত্ব করার মত। আর সেই কারণেই মুকুলকে নিয়ে আসা হয়েছিল বিজেপিতে।সূত্র অনুসারে জানা গেছে তাতে রাজ্য নেতাদের কাজকর্মের এমনিতেই অসন্তোষ্ট দিল্লি বিজেপি নেতৃত্ব।

কৈলাশ বিজয় বর্গীয় বলেছিলেন মমতা বিরোধী দের হাতে ইস্যু তুলে দিলোও তার পুরোপুরিভাবে ফায়দা ওঠাতে পারেননি বিজেপি নেতারা এর ফলে একটা বড়োসড়ো আন্দোলন ব্যর্থ হয়ে গেছে তাদের। এরপর এলপিজি দুর্নীতি, ধর্ষণের অভিযোগে মত বিষয় গুলি নিয়ে রুষ্ট হন অমিত শাহ। এর জন্য 28 সেপ্টেম্বর বৈঠকও করেন দিল্লিতে। রাজনৈতিকদের মতে নানা কারণে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি নেতাদের ওপরে আস্থা রাখতে পারছে না দিল্লী আর তাই তারা মনে করছেন যে মুকুল রায় পারা অভিজ্ঞতা আর কারও নেই।পশ্চিমবাংলায় কীভাবে ভোট করাতে হবে তা ভালভাবেই জানেন মুকুল রায়।এছাড়া আর একটি বড় কারণ রয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে, যে লোকসভা ভোটে দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা প্রার্থী হতে চলেছেন তাদের পক্ষে নিজেও কেন্দ্রে ছেড়ে 42 টি কেন্দ্রে মনোনিবেশ করা কঠিন সুতরাং সেটাও একটি বড় কারণ হতে পারে।

Related Articles

Close