এক বাস ড্রাইবার এর ছেলে থেকে বক্সঅফিসে ৩০০ কোটি টাকা উপার্জন কারী অভিনেতা যশ এর জীবন কাহিনী হার মানাবে সিনেমাকেও

বর্তমান যুগে আমরা অনেকেই বলিউড ইন্ডাস্ট্রি অর্থাৎ হিন্দি সিনেমার পাশাপাশি বেশি পছন্দ করি সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা দেখতে। সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার যে স্টোরি লাইন থাকে, যেভাবে অভিনেতা-অভিনেত্রীরা অভিনয় করেন, তাতে সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা সবার কাছে সমান ভাবে গ্রহণযোগ্য হয়। বাহুবলী হোক অথবা পুষ্পা, শিবাজী হোক অথবা ইন্দ্র, আজও এই সমস্ত সিনেমা দেখতে কিন্তু আমরা বেশ ভালই পছন্দ করি।

সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার মধ্যে অন্যতম হলো কেজিএফ। ছোট থেকে বড় প্রায় সকলেই দেখে ফেলেছেন এই সিনেমাটি। এই সিনেমার নায়কের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা যশ। এই সিনেমার হাত ধরে খ্যাতির শিরোনামে পৌঁছে যাওয়া অভিনেতা যশ বড় হয়েছেন একটি মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে। তাঁর বাবা একজন বাস চালক ছিলেন কর্নাটকের।

অভিনেতা যশের আসল নাম নবীনকুমার গৌরা। ছোটবেলা থেকেই দারিদ্র্যের মধ্যে বড় হয়েছেন অভিনেতা। দারিদ্র্যের কারণে উচ্চমাধ্যমিকের পর তিনি পড়াশোনা ছেড়ে দেন। ভালোবেসে যোগদান করেন থিয়েটারে। অভিনেতা যখন তাঁর পরিবারের সদস্যদের সকলের কাছে বলেন, তিনি অভিনয় জগতে প্রবেশ করতে চান তখন পরিবারের সকলে খুব ক্ষুব্ধ হয়ে যান।

অভিনেতা চলচ্চিত্রের প্রতি এতটাই আবেগী ছিল যে তিনি মাত্র ৩০০ টাকা নিয়ে চলে যান ব্যাঙ্গালোরে। সেখানে একা লড়াই শুরু করেন। স্বাভাবিকভাবেই চলচ্চিত্র জগতে এই স্থানে পৌঁছানোর খুব সহজ ব্যাপার ছিল না। লাইট ম্যান থেকে ব্যাকগ্রাউন্ড আর্টিস্ট, সর্বত্র কাজ করেছেন তিনি।

চলচ্চিত্র জগতে আসার আগেই বেশকিছু সিরিয়ালে কাজ করেছেন অভিনেতা যশ। ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত কেজিএফ সিনেমার হাত ধরে সর্বত্র স্বীকৃতি পান অভিনেতা। ছবিটি বক্স-অফিসে প্রায় আড়াইশো কোটি টাকা উপার্জন করতে পেরেছিল। শুধুমাত্র কেজিএফ নয়, এর দ্বিতীয় পর্বও যে কোটি কোটি টাকা উপার্জন করতে পারবে তা ইতিমধ্যেই আশা করছেন ভক্তরা। খুব শীঘ্রই সিনেমা হলে মুক্তি পেতে চলেছে কেজিএফ সেকেন্ড পার্ট।