তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন শুভেন্দুর

গত বছর ডিসেম্বরে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদান করেন শুভেন্দু অধিকারী। তারপর থেকে তিনি তৃণমূলের বিরুদ্ধে আক্রমণ করতে বেশি সবর হয়েছেন। বিভিন্ন কারণ তুলে ধরে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলোধোনা করতেও ছাড়িনি এই বিরোধী দলনেতা। আজ তৃণমূলের মুখ্যসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে ফোন করেন শুভেন্দু অধিকারী। ফোনে দুই নেতার মধ্যে বহুক্ষণ কথোপকথন হয়।

তৃণমূল থেকে বিজেপি তে যাওয়ার পর বারবারই শুভেন্দু অধিকারী মমতা ব্যানার্জি এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নানা কটাক্ষ করেন। এরপর মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে নন্দীগ্রামে ভোটে দাঁড়িয়ে জয় যুক্ত হন এই নেতা। আজ মুখ্যসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বিরোধী এই নেতা ফোন করেন।

এই ফোন করা নিয়ে কোনো জল্পনার কিছু নেই। শুভেন্দু অধিকারী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করেছিলেন বিধানসভায় কমিটি গঠন সম্পর্কে আলোচনা করার জন্য। বিধানসভায় ৪১ টি কমিটির মধ্যে বিজেপি কটি কমিটিতে এবং তৃণমূল কটি কমিটিতে থাকছে সেই বিষয়ে বহুক্ষণ ফোনে আলোচনা হয়। এক সূত্র মারফত খবর পাওয়া যায় বিধানসভায় ৪১ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপি কে ৯-১১টি কমিটি ছাড়তে রাজি হয়েছে।

বাংলার পর কোন কোন রাজ্যে নিজেদের ঘাঁটি গাড়তে চাইছে তৃণমূল, রইল সম্পূর্ণ তালিকা

কিন্তু বিজেপির বক্তব্য হল তাদেরকে ১৫টি কমিটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য। তবে এই বিষয়টি মানতে রাজি নন মুখ্যসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এই বিষয়ে এখনো সঠিক কোনো সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায়নি। দুই দলের মধ্যে এই নিয়ে আলোচনা চলছে।

সূত্রের খবর অনুসারে বিধানসভায় কমিটি গঠন না হলে বিধায়কদের ভাতা চালু হবে না তাই বিরোধীরা তড়িঘড়ি করে বিধানসভায় কমিটি গঠন করতে চাইছে। আর কমিটি গঠন করার জন্যই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মুখ্যসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করেছিলেন। তৃণমূল সূত্রের খবর পাওয়া গেছে বিজেপি থেকে নাকি বিধায়কদের নামের তালিকা না দেওয়ার জন্য বিধানসভায় কমিটি গঠন করা এখনো সম্ভব হয়ে ওঠেনি।