মৃত্যুর একঘন্টা আগে পর্যন্ত পাকিস্তানের আটক কুলভুষণ যাদবেব জন্য নিজের দায়িত্ব পালন করে গেলেন সুষমা স্বরাজ।

ভারতীয় জনতা পার্টির বরিষ্ঠ নেত্রী তথা প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ পাকিস্তানের জেলে বন্দি ভারতীয় নৌসেনার অবসরপ্রাপ্ত অফিসার কুলভূষণ যাদবের মামলা নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলেন। আর এই কারণে উনি যখন দেশের বিদেশ মন্ত্রী পদে নিয়োগ ছিলেন তখন কুলভুষণ যাদব মামলা নিয়ে তিনি আন্তর্জাতিক আদালতে আইনজীবী হরিশ সালভের সাথে লাগাতার যোগাযোগ করতেন। তবে এখানেই শেষ নয় এখন প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে গতকাল তার মৃত্যুর এক ঘন্টা আগে তিনি হরিশ সালভেকে ওনার পারিশ্রমিক এক টাকা দেওয়ার জন্য আজ সন্ধে ছ’টায় ডেকেছিলেন।

আপনাদের বলে রাখি এই হরিশ সালভে নেদারল্যান্ডের হেগ-এ আন্তর্জাতিক আদালতে কুলভূষণ যাদবের মামলা মাত্র এক টাকা পারশ্রমিক নিয়ে লড়েছিলেন। সুষমা স্বরাজ এর মৃত্যুর পর হরিশ সালভে একটি টিভি চ্যানেলের সাক্ষাৎকারে একথা বলেন। উনি বলেন সুষমা স্বরাজ এর মৃত্যুর এক ঘন্টা আগে 8:30 মিনিটে উনার সাথে আমার কথা হয়। সেটা অনেক ভাবাত্মক কথাপকোথন ছিল। ফোনে সুষমা স্বরাজ আমাকে বলেছিল, এসে আমার সাথে দেখা করো।

তুমি যেই কেস জিতেছো, তাঁর জন্য তোমার পারিশ্রমিক হিসেবে আমার থেকে এক টাকা নিয়ে যাও।” হরিশ বলেন, ‘আমি ওনাকে বলি, হ্যাঁ আমার এই পারিশ্রমিক আমি অবশ্যই নেব। তখন উনি আমাকে পরের দিন সন্ধ্যে 6 টার সময় যেতে বলেন। গত 2016 সালের মার্চ মাসে কুলভুষণ যাদব কে পাকিস্তান গ্রেপ্তার করেছিল। আর তারপর 2017 সালে এপ্রিল মাসে পাকিস্তান সেনা আদালতে তার উপর গোয়েন্দাগির এর আরোপ লাগিয়ে তাকে ফাঁসির সাজা শোনানো হয়েছিল তবে এই মামলায় পাকিস্তান ভারতীয় বিভিন্ন অধিকারীদের কুলভুষণ যাদবের সাথে দেখা সাক্ষাত করার অনুমতি দিচ্ছিলেন না। আর পাকিস্তান সেনা আদালতে কুলভূষণ যাদবের এরকম সাজা শোনাবার পরেই এই বিষয়টিকে ভারত আন্তর্জাতিক আদালতে তোলেন আর সেখানেই হরিশ সালভে মাত্র এক টাকার পারিশ্রমিকের বিনিময়ে এই মামলা লড়েন পাকিস্তানের সাথে।