প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে সুপ্রিম কোর্টের স্থিতাবস্থার নির্দেশ…

বেশ কয়েক বছর ধরেই পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের মামলা ঝুলে রয়েছে। এই মামলায় সুপ্রিম কোর্ট আবার নয়া নির্দেশ দিল।পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ মামলায় স্থিতাবস্তার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ আদালতে এই মামলার শুনানি হওয়ার সময় বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় এবং বিচারপতি হেমন্ত গুপ্তার বেঞ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে আগামী 1 লা এপ্রিল পর্যন্ত স্থিতাবস্থার নির্দেশ দেন। প্রচুর শিক্ষক পদ চাকরিপ্রার্থী কলকাতা হাইকোর্টের রায় কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। 2014 সালে জারি করা হয়েছিল প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি। সেই পরীক্ষাতে সিলেবাসের বাইরে প্রশ্ন আসার ফলে হাই কোর্ট আবেদনকারী পরীক্ষার্থীদের বাড়তি নম্বর দিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। তবে হাইকোর্ট জানিয়ে দেয় যে, যারা আবেদন করেছিলেন তারাই শুধুমাত্র এই বাড়তি নম্বর পাবেন।

 

কিন্তু পরীক্ষার্থীদের একাংশ দাবি করেন এই রায় সবার জন্যই প্রযোজ্য হওয়ার কথা। আদালতের রায় ভিন্ন ভিন্ন পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন কেন হবে? যারা আবেদন করেছিলেন এবং যারা আবেদন করেননি সকল পরীক্ষার্থীদের এই বাড়তি নম্বর দিতে হবে। সেই রায় কে চ্যালেঞ্জার নিয়ে হাইকোর্টে পুনরায় মামলা করা হলে তা সিঙ্গেল বেঞ্চে বাতিল হয়ে যায়। ফলে এক আবেদনকারী সুপ্রিম কোর্টে এ নিয়ে মামলা করেন। সুপ্রিম কোর্টের ওই মামলার শুনানিতে স্পষ্ট বলে দেওয়া হয়েছে যে, আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে জবাব দিতে হবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ কে। ফলে আগামী চার সপ্তাহ পর্যন্ত নিয়োগের ওপর স্থিতাবস্থা বজায় থাকবে। এরপরে প্রাইমারি শিক্ষা পর্ষদের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্ট এর কাছে আবেদন জানান, মামলা যেমন চলছে চলুক, কিন্তু নিয়োগ প্রক্রিয়া যেমন থেমে না থাকে, সেই দিকটা ও যেন লক্ষ্য রাখা হোক। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট আবেদন খারিজ করে দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button