আবারও ধেয়ে আসতে প্রবল নিম্নচাপ, চূড়ান্ত সর্তকতা জারি দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির জন্য

শরতের আমেজে ভাসছে দক্ষিণবঙ্গের জেলা গুলি। কিন্তু এরই মধ্যে হুড়মুড়িয়ে আসতে চলেছে প্রবল নিম্নচাপ । নিম্নচাপের প্রবাহে দক্ষিণবঙ্গের জেলা গুলি আগামী কয়েকদিন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়ে দিল আবহাওয়া দপ্তর। আগামী কয়েকদিন সমুদ্র থাকবে উত্তাল। আবহাওয়া দপ্তর এর তরফ থেকে শনিবার সন্ধ্যার মধ্যেই ফিরে যেতে বলা হয়েছে মৎস্যজীবীদের। রবিবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত সমুদ্রে মাছ ধরা নিষেধ। এদিন দেখা যায় বেলা বাড়তেই বৃষ্টির বেগ বাড়তে থাকে।

ঘন হতে থাকে নিম্নচাপ । শনিবার থেকে কলকাতায় এবং তার বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে শুরু হয়ে যায় প্রবল বর্ষণ। আবহাওয়া দপ্তর এর মতে শনিবার থেকেই বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরি হবে। এই নিম্নচাপ এর ফলে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। উপকূলবর্তী এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বইবার সম্ভাবনা আছে ,তাই মৎস্যজীবীদের এই তিনদিন সমুদ্রে যেতে নিষেধ করছে আবহাওয়া দপ্তর। এই দিন আবহাওয়া দপ্তর এর রিপোর্ট অনুযায়ী পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর তৈরি হয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত।

এই ঘূর্ণাবর্তের জেরে শনিবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। পরেই নিম্নচাপটি ক্রমশ উড়িষ্যার উপকূলে দিকে এগোবে। রবিবার রাতের মধ্যে নিম্নচাপটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে । রবিবার রাত থেকেই নিম্নচাপের অভিমুখ পশ্চিম এবং উত্তর-পশ্চিমে হবে। পরবর্তীকালে রাজস্থানের দিকে নিম্নচাপটি সরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। নিম্নচাপটি জেরে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ।রবিবার থেকে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর এবং হাওড়া জেলায়। আবহাওয়া

উপকূলবর্তী এলাকা এবং উপরোক্ত জেলাগুলিতে বৃষ্টির সাথে বইতে পারে ঝড়ো হাওয়া । প্রায় ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে জেলাগুলিতে এমনটাই দাবি আবহাওয়া দপ্তরের। এছাড়া দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতেও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্র সূত্রে জানা যাচ্ছে নিম্নচাপটি রাজস্থানের দিকে সরে যেতে পারে ।কারণ এই মৌসুমী অক্ষরেখার সাধারণত পূর্ব রাজস্থান থেকেই উড়িষ্যার পুরী হয়ে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত এবং পরে তা উত্তর-পূর্ব আরব সাগর পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে । যেটি মূলত গুজরাট মধ্যপ্রদেশ ছত্রিশগড়ের উপর দিয়ে যাচ্ছে।

রবিবার সকাল থেকেই কলকাতার আকাশ মেঘলা হতে পারে ।বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে কলকাতা এবং তার সংলগ্ন এলাকায় । রবিবার সারাদিনই বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকার জন্য অস্বস্তিকর গরম থাকতে পারে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। শনিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস ।রবিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৫ সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রী বেশি। আবহাওয়া সূত্রে পাওয়া খবরে জানা যাচ্ছে সোমবারে অতি ভারী বৃষ্টি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দুই মেদিনীপুর এবং দুই পরগনা, হাওড়া, ঝাড়গ্রাম ,বাঁকুড়া এসমস্ত জেলাগুলিতে ।৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে এ সমস্ত জেলাগুলিতে ।

এছাড়া মঙ্গলবারেও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দুই পরগনা এবং দুই মেদিনীপুরে। উত্তরবঙ্গে আপাতত কোন বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকলেও আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও। তবে আশা করা যাচ্ছে রবিবার থেকে বৃষ্টির বেগ কমতে পারে উত্তরবঙ্গে। আগামী কয়েকদিন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে উত্তরাখান্ড ,উড়িষ্যা ,কঙ্কন, গোয়া ,ছত্রিশগড়, পুদুচেরি , অন্ধ্র উপকূল ,তেলেঙ্গানা এবং কেরলে। এছাড়া রবিবার ও সোমবার ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে হিমাচল প্রদেশ এবং উত্তরপ্রদেশে।