বড়োসড়ো ঘোষণা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর, বেসরকারি বাস -মিনিবাস ট্যাক্স মকুব আগামী 30 শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত

COVID-19 এর জেরে অধিকাংশ মানুষের দিন কাটছে বাড়িতে বসেই। রাস্তাঘাটে তেমন একটা মানুষ জনের ভিড় দেখা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমনের ভয়। যখন রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করা হয় তখন থেকেই রাজ্যের বেসরকারি বাস এবং মিনিবাস সংগঠনের তরফ থেকে বাস চালাতে বাধার সৃষ্টি করে। কারণ তাদের দাবি এই সময়ে বাস চালালে তাদের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে কারণ সরকারের নির্দেশ অনুসারে এখন আগের মতোন আর প্যাসেঞ্জার চাপানো যাবে না বাসে। তাই মিনিবাস সংগঠনের তরফ থেকে ঠিক করা হয়েছিল তারা বাস চালাবে না।

এর ফলে যারা করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও অফিস যাচ্ছিলেন তাদের চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হয়। এরপর রাজ্য সরকারের তরফ থেকে প্রত্যেকটি বাস মালিকদের 15 হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হলে বাস মালিকরা রাজি হয় বাস চালানোর জন্য। অনুদান দেওয়ার পরেও বাস মালিকরা সেরকম ভাবে সন্তুষ্ট নন। বারবার তারা ভাড়া বৃদ্ধি করার দাবি তুলছিল সরকারের কাছে। যদিও সরকার বরাবরই ভাড়া বৃদ্ধির দাবি মানে নি। সম্প্রতি কয়েকদিন আগেই পরিবহন মন্ত্রীর সাথে মিনিবাস অ্যাসোসিয়েশনের বৈঠক হয় ভাড়া বৃদ্ধি কে নিয়ে।


বাস মালিকদের এবং মিনিবাস সংগঠনের এই ধরনের দাবিতে ক্ষুব্ধ হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।পরিষেবা না দিলে তিনি সমস্ত বাস অধিগ্রহণ করে নেবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন । মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর অবশ্য বাস মালিকরা বাস চালাতে বাধ্য হন। রাজ্য সরকার বাস মালিকদের কথা ভেবে নয়া সিদ্ধান্ত নিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, আগামী 30 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাস এবং মিনিবাসের কর মুকুব করা হবে। বৃহস্পতিবার নবান্নে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একথা ঘোষণা করেন।

এদিন নবান্নে উপস্থিত ছিলেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তিনি জানান, আগামী 30 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মিনিবাস এবং বাসের সমস্ত কর মুকুব। এমন কী মোটরভিকেল অ্যাডিশনালেরো কর মুকুব করা হয়েছে। এবং সরকারের তরফ থেকে পারমিট ফি মওকুব করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এদিন নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে,15 হাজার টাকা অনুদান এর বদলে মালিকেরা কর মুকুব করার দাবি জানিয়েছিলেন আমাদের কাছে। আর তাই তাদের কথা ভেবে কর মুকুব করা সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। সরকারের এই সিদ্ধান্তের বাস মালিকরা সন্তুষ্ট হবে বলে আশা করা হচ্ছে।