এই মাসেই শুরু হচ্ছে “জব ফেয়ার”, প্রায় ৫০ হাজার কর্মী নিয়োগ করবে Amazon

বিশ্বজুড়ে প্রায় ৫৫ হাজারেরও বেশি কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে অ্যামাজন। বিপুল সংখ্যায় কর্মী নিয়োগ করবে এই সংস্থাটি এমনই শোনা যাচ্ছে। সংস্থাটির চিফ এক্সিকিউটিভ আ্যন্ডি জ্যাসি একটি সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই দাবি করেছেন। জ্যাসির কথামতো প্রাথমিকভাবে কর্পোরেট এবং প্রযুক্তিগত বিভাগের কর্মী নিয়োগ করা হবে। দাবি করা হচ্ছে আ্যমাজন যে পরিমাণে কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে তা গুগলের কর্মী সংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ এবং ফেসবুকের কর্মীসংখ্যার প্রায় সমান।

আ্যন্ডি জ্যাসি জুলাই মাসে প্রথম অ্যামাজনের শীর্ষ কর্মকর্তার পদে যোগ দেন । এইদিন এটিই ছিল তার প্রথম প্রেস কনফারেন্স। তাঁর কথামতো “বর্তমানে খুচরো ব্যবসার চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে এছাড়া আমাদের অন্যান্য ব্যবসার ক্লাউড এবং বিজ্ঞাপনের গতি আনার জন্য আরও উপযুক্ত কর্মী প্রয়োজন। ” জ্যাসির কথা থেকে বোঝা যায় আ্যমাজনের বর্তমান লক্ষ্য ব্রডব্যান্ডের জন্য কক্ষপথে স্যাটেলাইট বসানো ।সংস্থার পক্ষ থেকে এই প্রজেক্টটির নাম দেয়া হয়েছে ‘প্রজেক্ট কুপার’। বর্তমানে এই জন্যই সংস্হার চাই পর্যাপ্ত কর্মীর।


১৫ সেপ্টেম্বর থেকেই কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়াকরণ চালু হয়ে যাবে ।সংস্থার পক্ষ থেকে কর্মী নিয়োগের এই প্রক্রিয়াকরণ টিকে নাম দেয়া হয়েছে’ জব ফেয়ার। ‘ সংস্থার পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে বর্তমানে অতিমারির পরিস্থিতিতে অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন বা তাদের চাকরি পরিবর্তন হচ্ছে। অনেকেই নতুন ধরনের চাকরির জন্য অপেক্ষায়। এই কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়াকরনে সে সমস্ত মানুষের প্রচুর লাভ হতে পারে । বর্তমান একটি সার্ভেতে দেখা গেছে প্রায় ৬৫ শতাংশ মানুষ তাদের কর্ম পরিবর্তন করতে চাইছেন।

সংস্থাটির পক্ষ থেকে একটি ওয়েবসাইট চালু করা হয়েছে। https://www.amazoncareerday.com নামক এই ওয়েবসাইটটি যথেষ্ট যুগোপযোগী এবং দরকারি প্রায় কুড়ি শতাংশ কর্মী বৃদ্ধি করা হবে বলে অ্যামাজনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে বর্তমানে সংস্থাটির বিশ্বজুড়ে মোট কর্মী সংখ্যা হল ২,৭৫,০০০।Amazon

সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ওয়্যারহাউজ তৈরি করা হবে যা বাড়ি পর্যন্ত প্রোডাক্ট পৌঁছে দেবে । এছাড়া কর্মীদের উৎসাহ বাড়ানোর জন্য তাদের ভাতা বাড়ানো হবে । জাসির কথা মত ন্যূনতম ভাষা ১৫ ইউ এস ডলার। তবে মোট কর্মী নিয়োগের বেশিরভাগটাই হবে আমেরিকায় বাকি নিয়োগ গুলি হতে পারে ভারত ,জার্মানি ,জাপান ইত্যাদির মধ্যে। আমেরিকাতে প্রায় ৪০,০০০ কর্মী নিয়োগ করা হবে বলে শোনা যাচ্ছে।