মাত্র ২০ হাজার টাকা দিয়ে আজই শুরু করুন এই ব্যবসা মাসে আয় হবে ৪ লক্ষ টাকা, বিস্তারিত জানতে

করোনার মহামারী আসার ফলে চাকরির যা হাল, বেশিরভাগ মানুষ ব্যবসার দিকে নিজের মন নিমজ্জিত করতে চাইছে। বর্তমানে এখন যা পরিস্থিতি তাতে একমাত্র ব্যবসার সাহায্যেই ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব। আপনার ক্ষেত্রে কোন ব্যবসাটি লাভজনক হবে, চলুন একবার জেনে নেওয়া যাক। লেমন গ্রাসের চাষ করে আপনিও মোটা টাকা লাভ করতে পারবেন। এই চাষের জন্য শুরুতেই ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ করে , মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। লেমন গ্রাস এর তেলের বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। লেমনগ্রাস এর তেল কসমেটিক্স, সাবান, তেল ও ওষুধ তৈরি সংস্থাগুলি ব্যবহার করে থাকে।

লেমনগ্রাস চাষ করার সবচেয়ে ভালো সময় হচ্ছে ফেব্রুয়ারি থেকে জুলাই মাস। এক বছরে এক একর জমি থেকে ৫ টন লেমন গ্রাসের পাতা পাওয়া যায়। তবে ১ কাটা জমি থেকে ৩ থেকে ৫ লিটার তেল পাওয়া যায়। মাত্র ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা হাতে নিয়ে এই চাষ শুরু করতে পারেন আপনিও। আপনার বাজেট বেশি হলে প্রথমেই মেশিন ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু এতে ২ থেকে ২.৫ লক্ষ্য টাকা লাগতে পারে। বিহারের রৌণক কুমার ও রমন কুমার নামে এই ২ ব্যাক্তি লেমনগ্রাস এর চাষ করে তা থেকে চা বানিয়ে গোটা দেশে সাপ্লাই এর মাধ্যমে মাসে ৪-৫ লক্ষ টাকা আয় করেন।

কৃষিক্ষেত্রে ব্যবসা করার কথা যদি ভাবেন, তাহলে আপনার অন্যতম অপশন হল পোল্ট্রি ফার্মিং। ১৫০ মুরগি নিয়ে ফার্মিং শুরু করতে চাইলে আপনিও প্রথমে মাসে আয় করতে পারবেন ১ লক্ষ টাকা। এর জন্য সবার আগে আপনার দরকার একটি বিশাল পরিমাণে জায়গা। প্রথমে ১০ শতাংশ মুরগির বাচ্চা কিনতে হবে আপনাকে, কারণ কিছু মুরগির বাচ্চা অসুস্থতার কারণে মারা যেতে পারে। প্রথমে ছোট করে শুরু করলে তবেই এর পর আপনি ১৫০০ মুরগি টার্গেট নিতে পারবেন।

মুরগি কেনার জন্য আপনাকে ৫০ হাজার টাকা বাজেট রাখতে হবে। মুরগী গুলোকে আলাদা ভাবে খাবারের ব্যবস্থা রাখতে হবে আপনাকে, পাশাপাশি মেডিকেশন এর ওপর খরচাও করতে হবে আপনাকে। এইভাবে ২০ সপ্তাহ মুরগিগুলোর পেছনে খরচ করার জন্য আপনার মোট খরচ হবে মাসে ১ থেকে ১.৫ লক্ষ টাকা। ২০ সপ্তাহ পর প্রত্যেকটি মুরগির ডিম দিতে শুরু করলে এক বছর পর্যন্ত তারা ডিম দেবে। এই হিসাবে চলে ১৫০০ হাজার মুরগি প্রতি বছরে ডিম দেবে ৪,৩৫,০০০ টি ডিম। প্রত্যেকটি ডিম আপনি ৫ টাকা হিসাবে বিক্রি করে, ভালো আয় করতে পারবেন।