মাথায় হাত প্রার্থীদের! মাত্র তিন দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়ে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি SSC-এর…

স্কুল সার্ভিস কমিশনের তরফ থেকে আবারো এক বিজ্ঞপ্তি জারি করা হল এক মাসেরও কম ব্যবধানে ফের নবম-দশম শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হল। এসএসসি (SSC) এর তরফ থেকে সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে সপ্তম দফায় অপেক্ষমান চাকরি প্রার্থীদের কাউন্সিলিংয়ের জন্য ডেকে পাঠিয়েছে তারা। তবে যেমনটা আমরা দেখতে পাচ্ছি রাজ্যজুড়ে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে জেলায় জেলায় বিক্ষোভ অবরোধ জেরে তিন দিনের মধ্যে কাউন্সিলিংয়ের হাজির মাথায় হাত পড়েছে প্রার্থীদের।

স্কুল সার্ভিস কমিশনের তরফ থেকে যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে অবশিষ্ট যে শূন্য পদ গুলি রয়েছে তাতে অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা চাকরি প্রার্থীদের নিয়োগের জন্য আগামী 16 ই ডিসেম্বর কাউন্সিলিং করতে চলেছেন তারা। আর এই বিষয়ে কাউন্সেলিং এর বিস্তারিত যে তথ্য তা জানানো হবে আজ রবিবার দিন এমনটাই জানানো হয়েছে এই বিবৃতিতে।এরই সাথে আশঙ্কা করে যাচ্ছে সম্ভবত এই দিন ইন্টিমেশন লেটার ডাউনলোড করার সুযোগ দেওয়া হবে স্কুল সার্ভিস কমিশনের তরফ থেকে।

তবে এই বিষয়ে এখন একাধিক প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যেখানে শোনা যাচ্ছে 13 ই ডিসেম্বর জারি করা স্কুল সার্ভিস কমিশনের বিজ্ঞপ্তির তিনদিনের ব্যবধানে কাউন্সিলিংয়ের দিনক্ষণ নির্ধারণ সময় কে ঘিরে। তবে এক্ষেত্রে চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ এই তিনদিনের সময়ের মধ্যে কাউন্সেলিং এর বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়ার ফলে উত্তরবঙ্গ সহ বিভিন্ন রাজ্যে পড়ুয়ারা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন।

এর প্রধান কারণ হলো আগামী 16 ডিসেম্বর সোমবার দিনে কাউন্সিলিংয়ের দিনক্ষণ হিসাবে ধার্য করা হয়েছে, এর আগে রবিবার দিন 15 তারিখ অর্থাৎ আজ এই কাউন্সেলিংয়ের সংক্রান্ত সমস্ত বিস্তারিত তথ্য প্রকাশিত হতে চলেছে কমিশন।আর বিস্তারিত তথ্য জানার পর সোমবার কাউন্সিলকে ঘিরে যথেষ্ট বিপাকে পড়তে চলেছেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ।কারণ এক্ষেত্রে তাদের সমস্যায় পড়তে হবে ট্রেনের টিকিট পাওয়া থেকে শুরু করে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেই কাউন্সেলিংয়ে হাজিরা হওয়ার ক্ষেত্রে, যার দরুন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ অংশ চিন্তায় পড়েছে।

তবে এর থেকেও বড় কারণ হলো এখন দেশজুড়ে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে জেলায় জেলায় দেখা দিয়েছে বিক্ষোভ-অবরোধ থমকে দেওয়া হচ্ছে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে, ট্রেন থেকে শুরু করে বাসে পর্যন্ত আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ভাঙচুর করা হচ্ছে একাধিক ট্রেন ফলে ব্যাহত হচ্ছে ট্রেন পরিষেবা। হলে এরকম এক পরিস্থিতিতে আগামী সোমবার দিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যে প্রার্থীরা ঠিকঠাকভাবে এসে পৌঁছবে সে নিয়ে রয়েছে একাধিক প্রশ্ন। এরকম এক পরিস্থিতি হওয়ার ফলে গতকাল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন এরকমভাবে যদি আইন হাতে তুলে সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করা হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এরই সাথে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন পুলিশ থানা, রেলস্টেশন, বিমানবন্দর, পোস্ট অফিস, সরকারী দফতর, পরিবহনব্যবস্থা এগুলি হল সকল জনগণের সম্পত্তি।তাই সরকারি ও বেসরকারি কোন ধরনের সম্পত্তিতে যদি কোনরকম ক্ষতি হয় তাহলে রাজ্য সরকার কোন মতেই তা বরদাস্ত করবে না এই নিয়ে আইনত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে সে ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

Related Articles

Close