চীনকে কড়া জবাব দিতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করা স্পেশাল সেনাদের মোতায়েন করা হল লাদাখ সীমান্তে..

দিনদিন চীনের সাথে ভারতের উত্তেজনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে আর এরকম এক পরিস্থিতিতে ভারত লাদাখ সীমান্তে স্পেশাল ফোর্স মোতায়েন করেছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে দেশের আলাদা আলাদা জায়গা থেকে এই প্যারা ইউনিটকে লাদাখ সীমান্তে নিয়ে যাওয়া হয়েছে চীনকে উপযুক্ত জবাব দেওয়ার উদ্দেশ্যে।আর আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি এই স্পেশাল ফোর্সের দ্বারাই 2017 সালে পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক সম্পন্ন হয়েছিল। তাই এই ফোর্স যে কতখানি ঘাতক’ ক্ষমতাসম্পন্ন তা বলার আর প্রয়োজন নেই।

তবে এক্ষেত্রে চীনের সাথে পরিস্থিতি যদি খারাপের দিকে এগোতে থাকে তাহলে এই ঘাতক ফোর্সকে কাজে লাগাবে ভারত,এই স্পেশাল ফোর্সকে আপাতত লাদাখে মোতায়েন করে দেওয়া হয়েছে আর তাদের কী করতে হবে সেটা নিয়েও অবগত করানো হয়েছে। অন্যদিকে আরো একটি খবর বেরিয়ে আসছে এই ভারত-চীন সীমান্ত বিবাদের মধ্যে যেখানে জানতে পারা যাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইতিমধ্যেই রাশিয়া থেকে আরও 31 টি নতুন ফাইটার জেট কেনার জন্য অনুমতি দিয়ে দিয়েছেন।

যেখানে ভারতের তরফ থেকে 12 টি Su-30MK ও 21 টি MiG-29 বিমান কেনা হবে। তারই পাশাপাশি বায়ু সেনার কাছে আগে থেকেই যে 59 টি MiG-29 মজুদ রয়েছে সেগুলি কে আরো উন্নত করা হবে। আর এই গোটা প্রক্রিয়াটি জন্য ব্যয় করা হবে 18 হাজার 148 কোটি টাকা। তবে এখানেই শেষ নয় এর পাশাপাশি ভারতের প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ পরিষদের তরফ থেকে তিন সেনার প্রয়োজনের জন্য আপাতত 38 হাজার 900 কোটি টাকার প্রস্তাব কে মঞ্জুরি দিয়ে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি পুতিন কে ফোন করে রাশিয়ার সংবিধান সংশোধনের জন্য শুভেচ্ছা জানানো হয়।

এছাড়া প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জারি করা হয়েছে এক বিজ্ঞপ্তি, যেখানে বর্তমান পরিস্থিতির প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এর নেতৃত্বে এই বৈঠকের প্রস্তাবকে মঞ্জুরি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রায় 38 হাজার কোটি টাকার এই যে প্রজেক্টটি রয়েছে ভারত প্রতিরক্ষা উপকরণের ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের জন্য ব্যয় করবে সেটি আরও বড় স্তরে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আত্মনির্ভর ভারত এজেন্ডা অনুযায়ী ভারতে প্রতিরক্ষা উপকরণের ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের কাজ সম্পন্ন করা হবে। এবং ভারতীয় ইন্ডাস্ট্রির জন্য 31 হাজার 130 কোটি টাকার যে প্রস্তাবটি রয়েছে সেটি ইতিমধ্যে পাশ হয়েছে। আর এক্ষেত্রে প্রতিরক্ষা উপকরণ ভারতীয় প্রতিরক্ষা কোম্পানি আর কয়েকটি MSME এর সাথে মিলে বিকাশিত করা হবে।

Related Articles

Back to top button